‘দলের জন্যই তামিম ঝুঁকি নিয়ে নেমেছে মাঠে’

তামিমের সংগ্রামী মনোভাব আর মুশফিকের অনবদ্য ব্যাটিং, দুইয়ের সমন্বয়ে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ, বলছেন অধিনায়ক মাশরাফী। জানিয়েছেন ম্যানেজমেন্টের চাওয়ায় নয়, দলের জন্যই তামিম এতো বড় ঝুঁকি নিয়ে নেমেছেন মাঠে। লঙ্কান অধিনায়কও কৃতিত্ব দিচ্ছেন তামিম-মুশফিককে। তবে সেই সাথে নিজেদের বাজে ফিল্ডিংকেও দুষলেন ম্যাথিউস।

বাংলাদেশের জয়, মুশফিকের অতিমানবীয় ব্যাটিং, লঙ্কানদের ক্যাচ মিস, কিংবা মাশরাফী, মুস্তাফিজদের বোলিং। এশিয়া কাপের শুরুটা স্বপ্নের মতো হওয়ার পরেও আলোচনায় নেই এসব জিনিস। সবাইকে ছাপিয়ে দেশপ্রেমের নিদর্শণ সৃষ্টি করে স্পটলাইটে তামিম ইকবাল।

হাতের ইনজুরিতে এশিয়া কাপ থেকে ছিটকে পড়ার খবর যখন ছড়িয়ে গেছে তখন এগারো নম্বরে ব্যাট হাতে তামিম নেমেছেন, দু:সাহসীকতায় দলকে উজ্জীবিত করেছেন, পাইয়ে দিয়েছেন জয়ের পুঁজি। এমন সিদ্ধান্ত কার কাছ থেকে আসলো, ম্যানেজমেন্ট তাকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছে নাকি ক্যারিয়ারে ঝুঁকি তামিম নিয়েছেন দলের জন্য? রহস্য পুরোপুরি খোলসা না করলেও সিদ্ধান্তটা যে তামিমের তা বুঝিয়ে দিয়েছেন মাশরাফী

পরের ম্যাচগুলোতে পাওয়া যাবে না তামিমকে এমনিতেই ওপেনিং নিয়ে কয়েক বছর ধরেই দুশ্চিন্তায় ম্যানেজমেন্ট। তারওপর স্তম্ভ তামিম নেই। দলের জন্য এর চেয়ে হতাশার আর কিইবা হতে পারে? কিন্তু অধিনায়ক তো আর হতাশ হতে পারেন না। মাশরাফী তাই ইতিবাচক থাকার চেষ্টা করছেন। এই সুযোগ কাজে লাগাতে বলছেন তরুণদের।

টাইগারদের এমন পারফরমেন্সে কপাল পুড়েছে শ্রীলঙ্কার। তামিমের ইনজুরি নিয়ে লড়াই করে যাওয়া, মুশফিকের হার না মানা মানসিকতাকে কৃতিত্ব দিচ্ছেন ম্যাথিউস। সেই সাথে কাঠগড়ায় দাঁড় করাচ্ছেন নিজেদের বাজে ফিল্ডিংকেও।

শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলা ম্যাথিউস বলেন, এই সটটা এসএনটিভিতে যদি আসে নিয়েন..নইলে পরের প্যারাটা ফেলে দিয়ে এখান থেকে পিটিসি দিয়েন।

কন্ডিশনের সাথে মানিয়ে নিয়ে জয় পেলেও টাইগারদের দুশ্চিন্তা ক্রিকেটারদের ইনজুরি। শতভাগ ফিট নন সাকিব, মুশফিক, ইনজুর আছে শান্তরও। আফগানদের বিপক্ষে একাদশ সাজাতে তাই একটু বাড়তি হোমওয়ার্ক করতেই হবে মাশরাফী-রোডসকে।