তামিম একটা নাম নয় , একটা অনুপ্রেরণা !

চলতি এশিয়া কাপে গতকাল শ্রীলংকার বিপক্ষে টসে জিতে ব্যাটিং করতে নেমে শুরু থেকেই উইকেট হারাতে থাকে টাইগাররা। এমন বিপদের দিনে দলের হাল ধরেন মি. ডিপেন্ডেবল’ মুশফিকুর রহিম।প্রায় সকলের সাথেই তিনি জুটি বাঁধার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু মিথুন ছাড়া সবাই তাকে নিরাস করেছেন।এমন করে খেলা গড়ায় শেষের দিকে।

অষ্টম উইকেট পড়ার পর সিদ্ধান্ত হয় মুশফিক যদি স্ট্রাইকে থাকে তবে শেষ উইকেটে ব্যাট হাতে মাঠে নামানো হবে তামিমকেইনিংসের৪৭তম ওভারে শেষ বলে মুস্তাফিজুর রহমান আউট হওয়ার শেষ উইকেটে তামিমকে নামানো নিয়ে ড্রেসিংরুমে কিছুটা দ্বিধাদ্বন্দ্ব দেখা যায়। কারণএখন ব্যাটিংয়ে গেলেই স্ট্রাইক নিতে হবে। আঘাত পাওয়া কবজি নিয়ে যা কিছুটা বিপদজনক।

কিন্তু এমন সময় বিপদের কথা মাথায় রেখেই ভাঙা হাত নিয়ে এক বল মোকাবেলার করার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেললেন তামিম। এদিকে তামিমের আবারব্যাটিং নামার আশঙ্কা থেকে গ্লাভস কেটে তৈরি করে রেখেছিলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা।কারণ দুই আঙুলে ব্যান্ডেজ থাকায় হাতে গ্লাভস পরাও সম্ভবহচ্ছিল না।

তামিমের শেষ সিদ্ধান্তের পর অধিনায়ক নিজে গ্লাভস সেট করে দেন তামিমের হাতে। অধিনায়কের দেওয়া গ্লাভস হাতে দিয়েই নতুন এক গৌরবের ইতিহাস লেখেন তামিম।

খেলা শেষে তামিমকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে নিজের ফ্যান পেজে টাইগার দলপতি মাশরাফি বিন মর্তুজা লিখেছেন,দেশের জন্য তামিমের এমন দৃষ্টান্ত মানুষ কখনও ভুলবে না। তামিম ইকবাল l এখন একটা নাম না, তামিম এখন একটা অনুপ্রেরণা। বাংলাদেশ যখন ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ল ঠিক তখনি হাল ধরেন মিঃ ডিপেন্ডেবল মুশফিকুর রহিম ও মিঠুন। তাদের দুজনের ব্যাটে ভর করে বাংলাদেশ পায় বড় সংগ্রহ। মুশিকে অভিনন্দন ১৪৪ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলার জন্য।

বিশেষ ধন্যবাদ জানাই দুবাইয়ে প্রবাসী বাংলাদেশীদের, যারা আমাদের এতো ভালবাসা দিয়েছে তাদের সর্মথনের মাধ্যমে। আমার দেশের সকলের প্রতি রইল আমাদের অনেক ভালবাসা। আমরা চেষ্টা করব আরও ভাল খেলে আপনাদের ভাল কিছু উপহার দিতে।।