তামিমের শূন্যস্থানে আসছেন কে ?

এশিয়া কাপের উদ্বোধনী ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আঙুলের চোট নিয়েই মাঠে নেমেছিলেন তামিম ইকবাল খান। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে তিনি সাজঘরে ফেরেনও চোট নিয়েই। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারের শেষ বলে লাকমালের বল খেলতে গিয়ে আঙুলে ব্যথা পান এই ড্যাশিং ওপেনার।

সাজঘরে ফিরে ফিজিওর সঙ্গে আলাপ করে জানতে পারেন কব্জিতে আঘাত পেয়েছেন তামিম। পরে মাঠ থেকে সোজা চলে যান হাসপাতালে। অনুমেয় ছিল চলতি এশিয়া কাপ আর খেলতে পারছেন না টাইগার ওপেনার। এক্স-রে রিপোর্ট পাওয়ার পর অনুমান সত্য হলো।

লাকমালের বলটি তামিমের কব্জির একটু নিচে লাগায় সেখানে চিড় ধরেছে। চিকিৎসকারা জানিয়েছেন, তা থেকে সেরে উঠতে তামিমের চার থেকে ছয় সপ্তাহ লাগতে পারে।

কিন্তু তার পরও তামিম কাল যা করলেন, তা বহুকাল মনে রাখবে বাংলাদেশের ক্রিকেট প্রেমীরা। হাতে ব্যান্ডেজ নিয়ে স্টেডিয়ামে ফেরেন দেশ সেরা এই ওপেনার। বাংলাদেশ ৯ম উইকেট হারিয়ে ফেললে মুশফিককে সঙ্গ দিতে হাতে ব্যান্ডেজ নিয়েই ব্যাট হাতে নেমে যান তামিম। তবে স্বাভাবিকভাবে নয় এক হাত দিয়ে ব্যাট করেছেন তিনি।

ম্যাচ শেষে তামিমের প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বলেন, ‘তামিমের জন্য একটি কথাই যথেষ্ট, মানুষের উচিত তাকে সব সময় মনে রাখা।’

মুশফিক বলেন, ‘যখন তামিমকে ব্যাট নিয়ে নামতে দেখে আমি প্রভাবিত হয়েছি, আমি চিন্তা করলাম আমার উচিত তামিম এবং দেশের জন্য আমাকে কিছু করতে হবে।’

যত কিছুই হোক… এখন প্রশ্ন হলো চলতি এশিয়া কাপে তামিম ইকবাল খানের শূন্যস্থান কে পূরণ করবে? গতকাল তামিম ইনজুরড হয়ে ফিরে গেলে মাঠে নামেন মো. মিথুন। দক্ষতার প্রমাণ দিলেও ওপেনিংয়ে তাকে নিয়ে টিম ম্যানেজমেন্ট চিন্তা করবে কি না তা বলা যায় না। দলে সৌম্য নেই যে, লিটনের সঙ্গে জুটি বেঁধে খেলবেন।

দল থেকে বাদ পড়ার কারণে উড়িয়ে নেওয়া যাবে না ইমরুল কায়েসকেও। রইলেন সদ্য নিষেধাজ্ঞা থেকে ফেরা মোহাম্মদ আশরাফুল। টিম ম্যানেজমেন্ট যে তাকে নিয়ে কোনো চিন্তা করছে না তা বলাই শ্রেয়। তাহলে টাইগারদের দিয়ে ধেঁয়ে আসা ধাক্কাটা সামলাবেন কে?

সাকিব আল হাসানের ইনজুরি নিয়ে জলঘোলা হওয়ার পর শেষ মুহূর্তে দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে মুমিনুল হককে। দলে আছেন আরেক ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্ত।

মুমিনুল হকের ব্যাপারে দারুণ শুরু আশা করাই যায়। কেননা তিনি পরীক্ষিত ব্যাটসম্যান। টেস্ট ম্যাচের পাশাপাশি ওয়ানডে দলেও তার দুর্দান্ত পারফরম্যান্স রয়েছে।

অপরদিকে শান্তর অভিষিক্ত ম্যাচ থেকে শুরু করে শেষ ম্যাচের পরিসংখ্যান বলে, তামিম ইকবালের সঙ্গী হলে মাঠে নামলেই তিনি ভালো করতে পারবেন।

আবার মো. মিথুনও যদি লিটন দাসের সঙ্গে ওপেনিংয়ে নামেন, তাহলে শুরুটা ঠিক কেমন হবে তা নিয়ে রয়েছে সংশয়। টাইগার দলের ওপেনিংয়ের পরিপূরক এখন পর্যন্ত তামিমই। তার শূন্যস্থান কে পূরণ করেন তাই এখন দেখার বিষয়।