সৌম্য-লিটন-মোসাদ্দেকদের এই তথ্য জানলে চোখে পানি আসবে আপনারও

ক্রিকেট ম্যাচে যে দলের রিজার্ভ বেঞ্চ যতটা শক্তিশালী হবে, সেই দল ততটাই শক্তিশালী হবে। কিন্তু একটা নির্মম শত্য কথা হলো, বাংলাদেশের রিজার্ভ বেঞ্চ একেবারেই কঙ্কাল। এদের ব্যাটিং গড়ের দিকে তাকালে আ্পনারই কান্না আসবে।

ভারতে হার্ডিক পান্ডেয়ার ইনজুড়িতে দলে আসলেন রবিন্দ্র জাদেজা। সেই জাদেজা বাংলাদেশের বিপক্ষে ৪ উইকেট নিয়ে একাই কাঁপিয়ে দিল বাংলাদেশী ব্যাটিং লাইন আপ।

অন্যদিকে তামিমের পরিবর্তে শান্ত দলে এসে দুই ম্যাচে করল ১৪ রান। বাংলাদেশ দলের ২০১৫ সাল থেকেই মুলত সত্যিকারের উথ্থান শুরু। আর সেই থেকে এখন পর্যন্ত বেশির ভাগ সাফল্য এসেছে সিনিয়র পাঁচ ক্রিকেটারের হাত ধরে। যখনই ব্যক আপ খেলোয়ারদের খুজতে গেছে, তখনই ব্যর্থতা চোখে পড়েছে।

নির্বাচকরা বার বার ঘুড়িয়ে ফিরিয়ে চেষ্টা করেছেন। সুযোগ দিয়েছেন সবাইকেই। কিন্তু সেই সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি কেউই। এনামুল, সৌম্য, ইমরুল, লিটন, মিথুন, শান্ত, মোসাদ্দেক সবাই ব্যর্থ হয়েছেন একের পর এক। নাসির, সাব্বির, মুমিনুল কেউই পারেনি প্রত্যাশা মেটাতে।

লিটন শেষ ৬ ম্যাচে করেছে ৫৪ রান। এনামুল শেষ ৭ ম্যাচে করেছে ৮৮ রান। সাব্বির শেষ ১০ ম্যাচে করেছে ১৪৪ রান। মোসাদ্দেক শেষ ৫ ম্যাচে করেছে ৫৩ রান। মিথুন ৪ ম্যাচে করেছে ৮৪ রান। নাসির শেষ ৫ ম্যাচে করেছে ১৯ রান। ইমরুল শেষ ৩ ম্যাচে করেছে ১০০ রান। শান্ত শেষ ২ ম্যাচে করেছে ১৪ রান।