রাজ পরিবারের সদস্য যে বলিউড অভিনেত্রীরা

বলিউডের বেশ কয়েক জন অভিনেত্রীর সঙ্গে রাজপরিবারের সম্পর্ক রয়েছে। কেউ আবার নবাব পরিবারের মেয়ে, কেউ বা জন্মেছেন অভিজাত কোনও রাজপরিবারে। জেনে নিন তাদের সম্পর্কে-

সোহা আলি খান
পতৌদির নবাব পরিবারের মেয়ে সোহা। তার বাবা ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন ক্যাপ্টেন মনসুর আলি খান পতৌদি ১৯৫১ সাল থেকে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত নবাবের পদে ছিলেন পরিবারের রীতি অনুযায়ী। বর্তমানে যে পদে রয়েছেন সাইফ আলি খান।

রাইমা ও রিয়া সেন
রাইমা সেনের বাবা ভরত দেববর্মা ত্রিপুরার রাজ পরিবারের সদস্য। ভরতের মা ইলা দেবী ছিলেন কোচবিহারের রাজকুমারী, যার ছোট বোন গায়ত্রী দেবী জয়পুরের মহারানি। ভরতের ঠাকুমা ইন্দিরা ছিলেন ভদোদরার মহারাজা তৃতীয় সাওয়াজি রাও গায়কোয়াড়ের একমাত্র কন্যা।

সাগরিকা ঘাটগে
চাক দে ইন্ডিয়া গার্ল কিন্তু কোলাপুরের রাজপরিবারের সদস্যা। তার বাবা বিজয় সিংহ ঘাটগে কোলাপুরের কাহাল রাজপরিবারের প্রধান উত্তরসূরি। কাজেই ক্রিকেটার জাহির খানের স্ত্রী সাগরিকাকে রাজকন্যা বলতে ক্ষতি নেই।

সোনাল চৌহান
এই অভিনেত্রী রাজপুত রাজপরিবারের সদস্যা। উত্তরপ্রদেশের রাজপুত পরিবারের মেয়ে সোনাল বলিউডে ‘জান্নত’ সিনেমার জন্য লাইমলাইটে আসেন।

ভাগ্যশ্রী
ম্যায়নে পেয়ার কিয়ার নায়িকা কিন্তু বাস্তবেও একজন রাজকুমারী। তার বাবা বিজয় সিংহ রাও পটবর্ধন মহারাষ্ট্রের সাঙ্গলি রাজ্যের রাজপরিবারের প্রধান উত্তরসূরি।

কিরণ রাও
আমির খানের স্ত্রী ও পরিচালক কিরণ তেলঙ্গানার অভিজাত ওয়ানাপার্থি পরিবারের মেয়ে। ওয়ানাপার্থির নামকরণ এই পরিবারের সূত্রেই। রাজা জে রামেশ্বর রাওয়ের বংশধর তিনি।

অদিতি রাও হায়দারি
অদিতি কিরণ রাওয়ের তুতো বোন। তিনিও তেলঙ্গানার ওয়ানাপার্থি পরিবারের মেয়ে।

আলিশা খান
বলিউড সিনেমাতে নাম করতে পারেননি। বরং জড়িয়েছেন নানা বিতর্কে। পয়সার অভাবে ফুটপাথে থাকার কথাও স্বীকার করেছিলেন। এই অভিনেত্রী কিন্তু মহম্মদ নবাব গাজিয়াউদ্দিন খান পরিবারের সদস্য। এই গাজিয়াউদ্দিনের নামেই গাজিয়াবাদ শহরের নামকরণ।

সূত্র : আনন্দবাজার