‘ভারতীয় মেয়েরা না পারলেও বাংলাদেশি মেয়েরা পেরেছে’

গত মাসে ভূটানে অল্পের জন্য ২য় বারের মতো সাফ অনূর্ধ্ব ১৫ নারী চ্যাম্পিয়নশিপ জেতা হয় নি। ভারতের কাছে ১ – ০ তে হেরে অনাকাঙ্খিতভাবে রানার্সআপ হয়েই খুশি থাকতে হয়। অথচ পুরো আসর জুড়ে কি চমৎকারই না খেলেছিল বাংলাদেশি কিশোরীরা।

তবে সেই ব্যর্থতা এশিয়ার সেরা হওয়ার লড়াইয়ের পথে বাধা হয়ে দাড়াতে পারেনি। মেয়েদের অনূর্ধ্ব ১৬ এশিয়া কাপের বাছাইপর্বের ১ম রাউন্ডে নিজেদের গ্রুপে চ্যাম্পিয়ন হয়েই ২য় রাউন্ডে গেলো বাংলাদেশ দল। গ্রুপের নিজেদের ৪টি ম্যাচই জিতে ২য় রাউন্ডে বাংলাদেশ দল। যেখানে মোট ৮ টি দল ৪টি স্থানের জন্য লড়াই করবে ২০১৯ সালের অনূর্ধ্ব ১৬ এশিয়া কাপ খেলার জন্য।

৮টি দল থাইল্যান্ডে অনুষ্ঠিত এশিয়ার সেরা হওয়ার লড়াইয়ে নামবে। ৪টি দল ইতিমধ্যে চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে, বাকি ৪টি হবে ২য় রাউন্ডে। ২০১৭ সালেও অনূর্ধ্ব ১৬ এশিয়া কাপের মূল আসরে অংশগ্রহণের সুযোগ পায় বাংলাদেশ দল। এদিকে বাংলাদেশ দল ২য় রাউন্ডে কোয়ালিফাই করতে পারলেও সদ্য সাফ চ্যাম্পিয়ন হওয়া ভারতীয় দল ব্যর্থ হয়েছে ১ম রাউন্ডের গন্ডি পার হতে।

নিজেদের গ্রুপে ২য় হওয়ায় এখানেই থমকে যায় তাদের স্বপ্ন। বাংলাদেশই দক্ষিণ এশিয়ার একমাত্র দল যারা এশিয়ার সেরা হওয়ার এই লড়াইয়ে মূল আসরে ২ বার অংশগ্রহণের যোগ্যতা লাভ করে। এবার খেলতে পারলে ৩য় বারের মতো সুযোগ পাবে বাংলাদেশ দল।

রিপোর্ট: সাফায়েত ইসলাম