আগামীকাল ভারতের বিপক্ষে ফাইনালে একাদশে থাকবেন মুমিনুল?

আগামীকাল ফাইনালে ভারতের মত প্রতিষ্ঠিত ক্রিকেট শক্তির বিপক্ষে খেলা সহজ হবে না মোটেও। শিরোপা জয়ের এই মহারণে তাই একাদশ নির্বাচনটাও ভীষণভাবে গুরুত্বপূর্ণ। প্রতিটা জায়গায় সঠিক প্লেয়ার রাখাটাই এখন টিম ম্যানেজমেন্টের অন্যতম চ্যালেঞ্জ।

শুরুতেই আসে ওপেনিং প্রসঙ্গ। এমনিতেই টাইগারদের বড় দুশ্চিন্তার নাম ব্যাটিং। এখনও পর্যন্ত নিজেদের সেরা ব্যাটিংটা তারা এবারের এশিয়া কাপে করতে পারেনি। ধারাবাহিকভাবে টপ অর্ডার ব্যর্থ হচ্ছে। অন্যদিকে ওপেনিংয়ের অবস্থাও যাচ্ছেতাই। একদিনও ওপেনাররা ভালো শুরু এনে দিতে পারেননি। সেদিক থেকে ভারতের বিপক্ষে কারা ওপেন করবেন, তা বলা কঠিন।

গত ম্যাচে সৌম্য সরকার রানের খাতাই খুলতে পারেননি। সম্ভাব্য অপশন হতে পারেন নাজমুল হোসেন শান্ত। কিন্তু শান্ত যেহেতু আগের তিন ম্যাচে ব্যর্থ ছিলেন সেই অনুপাতে আরেকটি ম্যাচ সৌম্যকেই খেলাতে পারে বাংলাদেশ। আর বোলিং ও ফিল্ডিং এর কারণেও সৌম্যই এগিয়ে থাকবেন। মুশফিক চোট নিয়েই খেলছেন, সুতরাং তার বদলে কিপিং করার জন্য হলেও লিটন খেলবেন, তা মোটামুটি নিশ্চিত। সেদিক থেকে সৌম্য-লিটনই ওপেন করবেন।

তিন নম্বরে মুমিনুলকে নিয়ে প্রশ্ন উঠলেও শেষ ম্যাচে দলের জয়ের কারণে একাদশে টিকে যাবেন মুমিনুল। কারণ তার পরিবর্তন পুরো ব্যাটিং লাইনআপটাকেই অগোছালো করে দিবে। আর ফাইনালের মতো গুরুত্বপূর্ন ম্যাচে অগুছালো ব্যাটিং লাইন আপ নিয়ে কোনো দলই খেলতে চাইবে না।

চার নম্বরে মুশফিকই নামবেন অন্যদিনের মত। এরপর যথাক্রমে ইমরুল, মাহমুদুল্লাহ, মিরাজ ও মাশরাফি আসবেন ব্যাটিং অর্ডার অনুযায়ী। তবে বাংলাদেশকে অবশ্যই শুরুতে ব্যাটিং বিপর্যয় আটকাতে হবে। উইকেট না হারিয়ে বড় জুটি গড়াই হবে প্রাথমিক লক্ষ্য। শেষ দিকে ভালো ফিনিশিংও নিশ্চিত করতে হবে। পাকিস্তান ম্যাচের মত স্লগ ওভারে অল্প রানে গুটিয়ে যাওয়া চলবেনা।

তার মানে পাকিস্তানের বিপক্ষের গত ম্যাচের একাদশ নিয়েই ফাইনালে মাঠে নামবে টাইগাররা।