লিটনের আউটের সিদ্ধান্তে সন্তুষ্ট নন সাইমন ডুল

উত্তেজনাপূর্ণ ফাইনাল শেষে আলোচনার কেন্দ্রে লিটন দাসের আউট প্রসঙ্গ। এ ধরণের পরিস্থিতিতে বেনেফিট অব ডাউট পাবেন ব্যাটসম্যানেরা- বলছেন ক্রিকেট বিশ্লেষকেরা। এই ইস্যুতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মুখোমুখি সমর্থকেরা। টিভি আম্পায়ার রড টাকারের পাশাপাশি টাইগার সমর্থকদের হতাশা মিডল অর্ডারের পারফর্মেন্সে।

মিডল অর্ডারের ব্যর্থতা সত্ত্বেও স্বপ্ন লড়াইয়ের পুঁজির। দাপুটে ব্যাটিংয়ে একাই পার্থক্য গড়ছিলেন লিটন দাস। কিন্তু কুলদিপ ইয়াদাভের স্পিনে হারালেন ভারসাম্য। টেলিভিশন রিপ্লে অনুযায়ী বেনেফিট অব ডাউট পাবেন ব্যাটসম্যান- প্রাথমিক পর্যবেক্ষণ শেষে ধারাভাষ্যকাররা।

কিন্তু থার্ড আম্পায়ার রড টাকার ভাবলেন ভিন্ন কিছু। হঠাৎ সমাপ্তি লিটনের ধ্রুপদী ছন্দে। তবে বিশ্লেষকেরা বলছেন- আরেকটা সুযোগ পাওনা ছিল লিটনের।

ক্রিকেট বিশ্লেষক জয় ভট্টাচার্য্য বলেন,”যদি সিদ্ধান্ত নিতে আপনি এতো সময় নেন-তবে এর মানে দাড়ায় আপনি নিশ্চিত নন। এরকম পরিস্থিতিতে ব্যাটসম্যানদের সুযোগ দেয়ার নিয়ম। কারণ বোলাররা সবসময় দ্বিতীয় সুযোগ পায়। ব্যাটসম্যানরা না।”

লিটন ইস্যুতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আরেক দফা লড়াই সমর্থকদের মাঝে। আলোচনার কেন্দ্রে ক্রিকেট আইন নাম্বার ৩৯। বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছেন সাবেকরাও। তবে সবধরণের সীমারেখা ছাপিয়ে লিটনের ব্যাটিং প্রশস্তি সবার মুখে।

নিউজিল্যান্ডের সাবেক ক্রিকেটার সাইমন ডুল বলেন, “লিটনের আউটের সিদ্ধান্তে আমি পুরো সন্তুষ্ট নই। আমার হিসেবে ওটা নট আউট। তবে রড টাকার ভালো আম্পায়ার। উনি হয়তো লাইনের পেছনে কিছু দেখতে না পেয়ে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।”

রড টাকারের পাশাপাশি কাঠগড়ায় মুশফিক-রিয়াদদের রাখছেন সমর্থকেরা। ব্যবচ্ছেদে প্রাপ্তি লড়াকু মানসিকতা। তামিম-সাকিবদের ছাড়া তরুণদের লড়াকু পারফর্মেন্স আত্মবিশ্বাস যোগাচ্ছে। শিরোপা ছাড়াও মাশরাফীকে চ্যাম্পিয়ন বলতে আপত্তি নেই তাদের।