৪৮ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণ শেষে সবাইকে সুখবর দিলেন সাকিবের অস্ট্রেলিয়ার ডাক্তার

ভক্তদের সুখবর দিলেন টাইগার অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। আঙুলের রিপোর্ট নাকি ভালো এসেছে। তাই দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই। অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে ডা. গ্রেগ হয়ের অধীনে ৪৮ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণ শেষে সুখবরটি জানালেন লাল-সবুজের এই অলরাউন্ডার।

‘রিপোর্ট সব ভালো। ইনফেকশন নিয়ন্ত্রণে আছে। তবে পুরো সেরে উঠতে সময় লাগবে। কত সময় লাগবে, সেটি অবশ্য এখনই বলা কঠিন। তবে মেলবোর্নে আরও এক সপ্তাহ থাকতে হবে।’

এই এক সপ্তাহ তাকে অ্যান্টিবায়োটিক ইনজেকশন দেয়া হবে। শেষ হলে আরেকবার হাত দেখে পরবর্তী করণীয় ঠিক করা হবে। তবে আগামি তিন মাস তিনি ব্যাট ধরতে পারবেন না বলে কড়া নির্দেশনা দিয়ে রেখেছেন চিকিৎসক।

মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর ২০১৮) মুঠোফোনে তিনি সংবাদ মাধ্যমকে এসব তথ্য দিয়েছেন।

সাকিবের সবচেয়ে বড় স্বস্তি, আঙুলে চামড়া উঠতে শুরু করেছে, উন্নতিও চোখে পড়ার মতো। তবে চিকিৎসকের কড়া নির্দেশ তিন মাসের আগে ব্যাট ধরা যাবে না। এই তিন মাসে যদি ব্যথা পুরোপুরি চলে যায়, সাকিবের অস্ত্রোপচার নাও লাগতে পারে। যদি ব্যথাটা থেকে যায়,তাহলে হয়তো অস্ত্রোপচারের বিকল্প থাকবে না। মেলবোর্ন থেকে ফেরার পর ধীরে ধীরে পুনর্বাসনপ্রক্রিয়া শুরু করবেন সাকিব।

বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্যও আপাতত এটাই বড় সুসংবাদ।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের জানুয়ারিতে ঘরের মাঠে তিন জাতির ক্রি‌কে‌ট টুর্নামেন্টের ফাইনালে ফিল্ডিংয়ের সময় বাঁহাতের কণিষ্ঠ আঙুলে গুরুতর চোট পান সাকিব। সেই চোট নিয়েই গিয়েছিলেন সদ্য সমাপ্ত এশিয়া কাপে।

টুর্নামেন্টে তিনটি ম্যাচ খেলার পর আঙুলে তীব্র ব্যথা অনুভব করলে টুর্নামেন্ট শেষ না করে ২৬ সেপ্টেম্বর দেশে ফিরে পরদিনই রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে ভর্তি হন সাকিব। আঙুল দেখে চিকিৎসক জানান তার ক্ষতে ইনফেকশন হয়ে পুঁজ জমে গিয়েছে এবং তৎক্ষণাৎ প্রায় ৬০-৭০ মিলিগ্রাম পুঁজ বের করা হয়। পাশাপাশি তারা এও জানিয়ে দেন তার আঙুল কখনোই পুরোপুরি সেরে উঠবে না এবং আগামি ৩ মাস তিনি কোনো ধরনের ক্রিকেট খেলতে পারবেন না।

তিনদিন পর হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে পরদিনই বিশেষজ্ঞ চিকিসকের পরামর্শ নিতে গত শুক্রবার (৫ অক্টোবর ২০১৮) রাতে মেলবোর্নের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়েন এই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামি রবিবার রাতে তিনি দেশে ফিরবেন তিনি।-কালের কণ্ঠ অনলাইন