এবার লিটনের দুর্দান্ত ডাবল সেঞ্চুরি

ওয়ালটন জাতীয় ক্রিকেট লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডের তৃতীয় দিন বুধবার রংপুরের হয়ে রাজশাহী বিভাগের বিপক্ষে মাত্র ১৪০ বলে ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন লিটন।

যদিও প্রথম ইনিংসে রান পাননি। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে ঠিকই ব্যাট হাসল লিটন দাসের। এই ওপেনার করলেন অসাধারণ এক ডাবল সেঞ্চুরি।

রংপুরের প্রথম ইনিংস গুটিয়ে গিয়েছিল মাত্র ১৫১ রানেই। লিটন করেছিলেন ১৭ রান। জবাবে মিজানুর রহমান (১৬৫), নাজমুল হোসেন শান্ত (১৭৩) ও জুনায়েদ সিদ্দিকের (১০০*) সেঞ্চুরিতে ৪ উইকেটে ৫৮৯ রানে ইনিংস ঘোষণা করে রাজশাহী।

৪৩৮ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে রংপুরকে ভালো সূচনা এনে দেন লিটন ও জাহিদ জাবেদ। দুজন গড়েন ৯৮ রানের উদ্বোধনী জুটি। জাহিদ ৩৫ রান করে ফেরার পর দ্বিতীয় উইকেটে মাহমুদুল হাসানের সঙ্গে আরেকটি বড় জুটি গড়ার পথে লিটন তুলে নেন সেঞ্চুরি।

শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করা লিটন ব্যক্তিগত ৯৯ থেকে তাইজুল ইসলামকে টানা দুই চার হাঁকানোর পথে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ৮১ বলে। এই সময়ে ১৭টি চার ও একটি ছক্কা হাঁকান ডানহাতি ব্যাটসম্যান।

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে নিজের ১৩তম সেঞ্চুরিটাকে ডাবলে রুপান্তর করতেও লিটনের বেশি সময় লাগেনি। পরের একশ করেন মাত্র ৫৯ বলে। সেঞ্চুরির মতো ডাবলটাও পূর্ণ করেছেন প্রায় একইভাবে। ব্যক্তিগত ১৯৯ থেকে সেই তাইজুলকে টানা ছক্কা ও চার হাঁকানোর পথে ছুঁয়ে ফেলেন মাইলফলক।

এক বল পরই অবশ্য আউট হয়ে যান লিটন। ১৪২ বলে ৩২টি চার ও ৪টি ছক্কায় ২০৩ রানের আলো ঝলমলে ইনিংস খেলেন জাতীয় দলের এই ওপেনার। তার বিদায়ে ভাঙে ২১৯ রানের দ্বিতীয় উইকেট জুটি।

১৪০ বলে ডাবল সেঞ্চুরি করে লিটন ভেঙেছেন নিজেরই রেকর্ড । প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানের এটি দ্রততম ডাবল সেঞ্চুরি। গত এপিলে ক্যারিয়ার সেরা ২৭৪ রানের ইনিংস খেলার পথে লিটন ডাবল ছুঁয়েছিলেন ১৯৩ বলে। বাংলাদেশের আর কোনো ব্যাটসম্যানের দুইশ বলের নিচে ডাবল সেঞ্চুরি নেই।

দুবাইয়ে এশিয়া কাপের ফাইনালে দারুণ এক সেঞ্চুরি করেছিলেন লিটন। দেশে ফিরে জাতীয় লিগের প্রথম রাউন্ডে খেলেননি। দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলতে নেমেই করলেন ডাবল সেঞ্চুরি। আসন্ন জিম্বাবুয়ে সিরিজে ফর্মটা ধরে রাখতে পারলেই হয়!