চার বছর পর মালিঙ্গার ৫ উইকেট

লাসিথ মালিঙ্গাকে তাতিয়ে দিয়েছেন চন্দিকা হাথুরুসিংহে। এক বছর পর জাতীয় দলে ফিরেই আগুনঝরা বোলিং করছেন মালিঙ্গা। শনিবার ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১০ ওভারে ৪৪ রানে নেন ৫ উইকেট।

এ নিয়ে ক্যারিয়ারে ছয়বার পাঁচ বা তার বেশি উইকেট শিকার করলেন লংকান এই তারকা পেসার। সবশেষ ২০১৪ সালের মার্চে ঢাকায় এশিয়া কাপের ফাইনালে ৫৬ রানে পাকিস্তানের ৫ উইকেট শিকার করেছিলেন তিনি। সেদিন তার বিধ্বংসী বোলিংয়ে এশিয়া কাপের শিরোপা জিতে নেয় শ্রীলংকা। ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেন মালিঙ্গা।

তবে গত বছর হাথুরুসিংহে শ্রীলংকা দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব নেয়ার পর দল থেকে বাদ পড়ে যান মালিঙ্গা। লংকান এই তারকা পেস বোলার নিজের ক্যারিয়ারের শেষ দেখছিলেন। এক বছর পর গত মাসে (১৫ সেপ্টেম্বর) এশিয়া কাপে বাংলাদেশ দলের বিপক্ষে সুযোগ পান মালিঙ্গা। দলে ফিরেই গতির ঝলক দেখান তিনি। তার গতিতে বিধ্বস্ত হয় বাংলাদেশ দল।

তবে ১ রানে দুই উইকেট হারানো বাংলাদেশ খেলায় ফেরে, মুশফিকুর রহিম এবং মিঠুনের ব্যাটে। ম্যাচে ১৩৭ রানে বিশাল ব্যবধানে জয় পায় বাংলাদেশ। সেই থেকেই ফর্মের তুঙ্গে রয়েছেন মালিঙ্গা। সবশেষ চার ম্যাচে মালিঙ্গার সংগ্রহ ১০ উইকেট।

শনিবার শ্রীলংকার ডাম্বুলায় টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে মালিঙ্গার তোপের মুখে পড়ে শূন্য রানে ওপেনার জেসন রয়ের উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। শুরুর ধাক্কা সামলিয়ে দলকে খেলায় ফেরান জনি বেয়ারস্টো ও জো রুট। তৃতীয় উইকেটে তারা ৭২ রান যোগ করেন। ২৬ রানে ফেরেন বেয়ারস্টো। এরপর অধিনায়ক ইয়ম মর্গানের সঙ্গে ৬৮ রান যোগ করেন রুট। ৮৩ বলে ৭১ রান করেন ফেরেন ইংল্যান্ডের টেস্ট অধিনায়ক জো রুট।

এরপর বেন স্টোকসকে সঙ্গে নিয়ে ৫০ রানের জুটি গড়েন অধিনায়ক মর্গান। ১৫ রানে ফেরেন স্টোকস। এরপর মালিঙ্গার তোপের মুখে পড়ে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে ইংল্যান্ড।

সেঞ্চুরির পথেই ছিলেন ইংলিশ অধিনায়ক। শতরান থেকে ৮ রান দূরে থাকতেই তাকে ফেরান মালিঙ্গার বলে তার হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন মর্গান। সাজঘরে ফেরার আগে ১১ চার ও ২ ছক্কায় ৯২ রান করেন মর্গান। তার বিদায়ের পর সময়ের ব্যবধানে উইকেট হারিয়ে ৯ উইকেটে ২৭৮ রানেই গুটিয়ে যায় ইংল্যান্ড। শ্রীলংকার হয়ে একাই ৫ উইকেট শিকার করেন মালিঙ্গা।

টার্গেট তাড়া করতে নেমে ইংলিশ পেস বোলারদের গতির মুখে পড়ে ৩১ রান তুলতেই ৪ উইকেট হারায় শ্রীলংকা। পঞ্চম উইকেটে ৪৩ রানের জুটি গড়ে ফেরেন কুশাল পেরেরা।

এরপর দলের হাল ধরেন ধননজয়া ডি সিলভা ও থিসেরা পেরেরা। তাদের অবিচ্ছিন্ন ৬৬ রানে জুটির পথেই বৃষ্টি শুরু হয়। এরপর আর খেলা মাঠে গড়ায়নি। বৃষ্টি আইনে ৩১ রানের জয়ে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ১-০তে এগিয়ে যায় ইংল্যান্ড। এর আগে প্রথম ম্যাচে রেজাল্ট হয়নি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ইংল্যান্ড: ৫০ ওভারে ২৭৮/৯ (মর্গান ৯২, রুট ৭১; মালিঙ্গা ৫/৪৪)।

শ্রীলংকা: ২৯ ওভারে ১৪০/৫ (থিসেরা ৪৪*, সিলভা ৩৬*; ওকস ৩/২৬)।

ফল: বৃষ্টি আইনে ইংল্যান্ড ৩১ রানে জয়ী।

ম্যাচসেরা: ইয়ন মর্গান (ইংল্যান্ড)।