নাইজেরিয়ায় পেট্রোল চুরির সময় ৩০ চোরের মৃত্যু

নাইজেরিয়ায় পেট্রোল চুরি করতে গিয়ে একটি পাইপলাইনে আগুন ধরে কমপক্ষে ৩০ চোরের মৃত্যু হয়েছে। গত শুক্রবার (১২ অক্টোবর) দেশটির দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় আবা শহরে এই ঘটনা ঘটে বলে কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে জানিয়েছে আল জাজিরা।

এই ঘটনায় বেঁচে যাওয়া নামদি তোচুকয়ু বলেন, শুক্রবার দিনগত রাত সাড়ে একটার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ৩০ জনের বেশি মানুষ অগ্নিদগ্ধ হন।

নাম না প্রকাশের শর্তে এক নিরাপত্তা কর্মকর্তা বলেন, উদ্ধারকর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগে ৩০ জনের বেশি মানুষ অগ্নিদগ্ধ হয়েছে। তাদেরকে শহরের ভেতরে ও বাইরের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

রাষ্ট্র পরিচালিত নাইজেরিয়ান ন্যাশনাল পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (এনএনপিসি) মুখপাত্র এনডু উঘামানডু এএফপি’কে বলেন, আমি নিহতদের সঠিক সংখ্যা বলতে পারছি না। কিন্তু এটা নিশ্চিত যে তারা হারকোর্ট বন্দর শোধনাগার থেকে আবা পথে নেয়ার সময় পথরোধ করে পেট্রোল ছিনতাইয়ের চেষ্টা চালিয়েছিল।

ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।আফ্রিকার সবচেয়ে বড় তেল উৎপাদনকারী এবং রপ্তানিকারক দেশ নাইজেরিয়া। একটি পাইপলাইন নেটওয়ার্কের মাধ্যমে দেশটির এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় অপরিশোধিত তেল ও পেট্রোল নেয়া হয়। মাঝেমাঝে এসব পাইপলাইন ছিদ্র করে তেল ও পেট্রোল চুরির ঘটনা ঘটে। পাইপলাইন ছিদ্র করার সময় বিস্ফোরণের ঘটনাও ঘটে থাকে।

প্রসঙ্গত, ১৯৯৮ সালে নাইজার ডেলটায় এক বিস্ফোরণে এক হাজারেরও বেশি লোক মারা যায়। ২০০৬ সালে পাইপলাইন ছিদ্র করার সময় বিস্ফোরণের ঘটনায় কমপক্ষে ২৬৯ জন মারা যায়।—আরটিভি অনলাইন