এবাদতের বোলিং তোপে ১৭৮ রানে অলআউট জিম্বাবুয়ে

সাভারে স্বাগতিক বিসিবি একাদশ ও সফরকারী জিম্বাবুয়ের মধ্যকার একমাত্র একদিনের প্রস্তুতি ম্যাচে বিসিবি একাদশকে ১৭৯ রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েছে জিম্বাবুয়ে।

তরুণ পেসার এবাদত হোসেনের বোলিং তোপে ৪৫.২ ওভারে ১৭৮ রানেই গুটিয়ে যায় জিম্বাবুয়ে। এবাদত একাই শিকার করেন পাঁচ উইকেট।

শুরুতে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়লেও প্রতিরোধ গড়ে তোলে দলকে সম্মানজনক সংগ্রহ এনে দেওয়ায় মূল অবদান অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজার। দলীয় ৪৭ রানে ৫ ব্যাটসম্যানকে হারানোর পর অলরাউন্ডার চিগুম্বুরাকে নিয়ে শতক হাঁকানোর পাশাপাশি দৃঢ় প্রতিরোধ গড়ে তোলেন তিনি।

যদিও দলীয় ৭ রানের ওপেনার ক্রেইগ আরভিনকে (১) সাজঘরে ফিরিয়ে উইকেট পতনের শুভসূচনা ঘটান পেসার এবাদাত হোসেন। দলীয় ১৫ রানে শিন উইলিয়ামসকে প্যাভিলিয়নের পথ দেখিয়ে তৃতীয় উইকেটটিও শিকার করেন তিনি। এর আগে তারকা ক্রিকেটার ব্রেন্ডন টেলরকে সাজঘরের পথ দেখান ওয়ানডে সিরিজের মূল স্কোয়াডে থাকা মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। তার বলে এলবিডব্লিউ হয়ে টেলর সাজঘরে ফেরেন মাত্র ৬ রান করে।

তিন ব্যাটসম্যানের বিদায়ের পর সিকান্দার রাজাকে নিয়ে প্রতিরোধের চেষ্টা করেন হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। কিন্তু দলীয় ২৮ রানে সাজঘরে ফেরেন রাজাও। তাকে আউট করেন জাতীয় পর্যায়ের ক্রিকেটে নতুন মুখ মোহর শেখ। দলীয় ৪৭ রানে পিটার মুরকে সাইফউদ্দিনের ক্যাচে পরিণত করেন ইমরান আলী। ৫ উইকেট হারানোর পর বিপর্যয়ের শঙ্কা দেখা দিলেও এল্টন চিগুম্বুরাকে নিয়ে এখন দেখেশুনে খেলে যান অধিনায়ক মাসাকাদজা।

তবে মাসাকাদজা ১০২ ও চিগুম্বুরা ৪৭ রান করে সাজঘরে ফেরার পর আবারও ব্যাটিং অর্ডার ধ্বসে পড়ে। শেষপর্যন্ত ৪৫.২ ওভার খেলে ১৭৮ রানেই অলআউট হয় সফরকারীরা।

এবাদতের শিকার করা পাঁচ উইকেট ছাড়াও বড় অবদান রেখেছেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। তিনি শিকার করেছেন তিনটি উইকেট।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

টস: জিম্বাবুয়ে

জিম্বাবুয়ে ১৭৮/১০ (৪৫.৫ ওভার)

মাসাকাদজা ১০২, চিগুম্বুরা ৪৭

এবাদত ১৯/৫, সাইফউদ্দিন ৩২/৩

বাংলাদেশের লক্ষ্য ১৭৯ রান।—-বিডিক্রিকটাইম