খুব শীঘ্রই আপনারা সৌম্য সরকারকে জাতীয় দলে দেখতে পাবেন : প্রধান নির্বাচক

নিজের ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছেন সৌম্য। যেন নিজের পুরনো রূপে আবার ফিরে পেয়েছেন জাতীয় দলের এই ওপেনার। বিগত কয়েক বছর যাবত নিজেকে সেভাবে মেলে ধরতে পারছেন না জাতীয় দলের একসময়ের এই বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান। তবে হারিয়ে যাওয়া সেই সৌম্য সরকারের এ খুঁজে বেড়াচ্ছেন তিনি। বাংলাদেশের হয়ে যে দলেই খেলুক না কেন নিজের সেরাটা দিয়ে খেলার চেষ্টা করছেন তিনি।

আসন্ন জিম্বাবুয়ে বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ডাক পাননি সৌম্য সরকার। যদিও এশিয়া কাপের মাঝপথে হঠাৎ করেই তাকে উড়িয়ে নেয়া হয় সংযুক্ত আরব আমিরাতে। তবে আশার বাণী হচ্ছে এটাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে ফিরতে পারেন সৌম্য সরকার।

এমন একটি আভাস পেয়েছে বাংলাওয়াশ ক্রিকেট। সে জন্য প্রস্তুতি ম্যাচের জন্য অধিনায়ক করা হয়েছে সৌম্য সরকারকে। জাতীয় ক্রিকেট লীগে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করছেন সৌম্য সরকার।জাতীয় ক্রিকেট লীগে এখন পর্যন্ত তৃতীয় রাউন্ডের প্রতিটি ম্যাচেই ব্যাট এবং বল দুই বিভাগেই অবদান রাখছেন সৌম্য।

প্রথম ম্যাচে রাজশাহী বিভাগের বিপক্ষে অপরাজিত ১০৩ রান করেছিলেন সৌম্য। এরপর দ্বিতীয় ম্যাচে বৃষ্টির কারণে ম্যাচটি চার দিনে গড়ায়নি। ওই ম্যাচে এক ইনিংসে করেছেন ৩৩ রান। তবে ঘুরে দাঁড়িয়েছেন তৃতীয় রাউন্ডে। দুই ইনিংসেই তুলে নিয়েছেন দুটি ফিফটি আর বল হাতে তুলে নিয়েছেন ৫ উইকেট।

দ্বিতীয় রাউন্ডের প্রথম ইনিংসে ৭৬ রানের এক দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন সৌম্য। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে এই ভুল টি অাবার করে বসেন সৌম্য। সেঞ্চুরির খুব কাছে গিয়েও করতে পারেননি তিনি। ৭১ রানের মাথায় আউট হন তিনি। তবে এদিন তুলে নিয়েছেন ৫ উইকেট।

আর আজ তো সেঞ্চুরি করে বসলেন আবার। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে চমৎকার একটি সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন সৌম্য। সৌম্য সরকারের এই সেঞ্চুরিতে দারুণ খুশি হয়েছে জাতীয় দলের নির্বাচক থেকে শুরু করে প্রধান কোচ স্টিভ রোডস।

সৌম্য সরকারের প্রশংসা করে ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বলেন, ‘এই জয়টা আমাদের দলের আত্মবিশ্বাস অবশ্যই চাঙ্গা করবে। সৌম্য দুর্দান্ত ব্যাটিং করেছে। সকালে এবাদতের বোলিংটাও ইম্প্রেসিভ ছিল। যথেষ্ট ভালো বল করেছে ইবাদত।

ওকে আমরা এইচপিতে গত দুই বছর ধরে নার্সিং করছিলাম। অনেক দিন পর তাকে ওয়ানডেতে নেয়া হয়েছে। আমরা ওকে লঙ্গার ভার্সনের অন্য রেডি করছিলাম। তো ওভারঅল দেখে যথেষ্ট ভালো লেগেছে যে আমাদের এইচপির প্লেয়াররা ভালো একটা অবস্থানে আছে।’

সৌম্যর ব্যাটিং নিয়ে প্রধান নির্বাচক বলেন, ‘লাঞ্চের পর সৌম্য সরকারের ব্যাটিংটা যথেষ্ট ভালো লেগেছে। আমি মনে করি ওর যে ব্যাড প্যাচ ছিল, সেটা থেকে বেরিয়ে আসতে শুরু করেছে সৌম্য। লাস্ট এনসিএল ম্যাচটাও যথেষ্ট ভালো খেলেছে। আমার বিশ্বাস, ফর্মে ফিরে আসলে সৌম্য খুব শিগগিরই আবার টিমে ফিরে আসবে।’

পেসার সাইফুদ্দিনের বোলিংটাও মনে ধরেছে প্রধান নির্বাচকের। তাই তো মুখে এমন কথা, ‘সাইফুদ্দিন আমাদের ওয়ানডে স্কোয়াডে আছে। যথেষ্ট ভালো বল করেছে। ওভারঅল পুরো দল যথেষ্ট ভালো করেছে। সবার পারফরম্যান্স ও সন্মিলিত প্রচেষ্টা দারুণ। আমাদের তরুণরা যদি এভাবে ধারাবাহিক উন্নতির মধ্যে থাকে, তাহলে সবার জন্যই প্লাটফর্ম ওপেন হয়ে যাবে।’

সৌম্যর জন্য ওপেনিংয়ে জায়গা কি খালি আছে? এ প্রশ্নের জবাবে নান্নু বলেন, ‘সৌম্য আমাদের চোখের আড়াল হয়নি। ও তো আমাদের ৩০ জনের পুলের মধ্যেই আছে। আমরা একটা প্রসেসের মধ্যে আছি। এই জিম্বাবুয়ে সিরিজের স্কোয়াডে আমাদের কিছু খেলোয়াড়কে দেখতে হচ্ছে।

সৌম্য সরকারকে যদি দরকার হয়, সবসময় বলি দেশের জন্য কাউকে দরকার হলে তাকে সবসময় নেয়া হবে। এটা নিয়ে চিন্তিত হওয়ার কিছু নেই। এমন না যে, আমরা একটা প্লেয়ারকে বাদ দিয়ে দিয়েছি বলে ওকে আর ডাকা হবে না। ৩০ জন প্লেয়ার পুলের মধ্যে আছে, যাকে যখন দরকার হবে তখন দেখবেন তাকেই আমরা সুযোগ দিচ্ছি।’

ফজলে রাব্বির ব্যাটিং নিয়ে কিছু বলতে বলা হলে মিনহাজুল আবেদীন নান্নুর উত্তর, ‘সে প্রথমবারের মত জাতীয় দলকে প্রতিনিধিত্ব করছে। প্রথম ইনিংস খেলছে সে, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। একটা টেস্ট খেলুড়ে দেশের বিপক্ষে প্রথম খেলছে সে। সেই হিসেবে মূল্যায়ন করলে হবে না। এটা শুধু একটা অভিজ্ঞতা। সামনে ওর জন্য একটা ক্যারিয়ার পড়ে আছে। আমার বিশ্বাস, ও অবশ্যই ভালো করবে।’