ডাক্তারের অবহেলায় প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ

মোঃ রাকিব আল রিয়াদ, ঠাকুরগাঁও: ঠাকুরগাঁওয়ে মাম হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার নামে বেসরকারি একটি ক্লিনিকে ডাক্তার হামিদুর রহমানের অবহেলায় প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে।

ক্লিনিক ও রোগির স্বজনদের সূত্রে জানা যায়, পঞ্চগড় বোদা উপজেলায় আব্দুল্লাহ আল মামুনের গর্ভবতী স্ত্রী নাজমুন নাহার (৩১) বৃহস্পতিবার(১৮ অক্টোবর) রাতে সিজারিয়ান অপারেশন করেন ডা. হামিদুর রহমান।

শুক্রবার (১৯ অক্টোবর) সকালে রোগীর অতিরিক্ত রক্তচাপের ফলে ক্ষতস্থান থেকে রক্ত পড়া শুরু করে। রোগীর পরিস্থিতির অবনতি ঘটলে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ ও ডা. হামিদুর উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যাওয়ার পরামর্শ দেন। পরে মুমূর্ষু রোগীকে রংপুরে নিয়ে যাওয়ার আগেই মৃত্যুবরণ করে।

প্রসূতির রোগীর স্বামী আব্দুল্লাহ আলমামুন জানান, ডা. হামিদুর রহমানকে রোগীর সকল সমস্যার কথা বলার পরেও দ্রুত সিজারিয়ান অপারেশন করেন।
রক্তক্ষরণ বন্ধ না হলে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ ডাক্তারকে অবহিত করলে রংপুর যাওয়ার পরামর্শ দেন। কিছুক্ষণ পরেই আমার স্ত্রী মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়ে।

ডা. হামিদুর রহমানের কাছে রোগীর মৃত্যুর কারণ জানতে চাইলে তিনি জানান, রোগীর রক্তক্ষরণে কথা জানালে দ্রুত রংপুর যাওয়ার পরামর্শ দেন। তাছাড়া ক্লিনিকে আইসিইউ না থাকার কারণে রোগীকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি।
বিষয়টি রোগীর স্বজনের পরিবারের সাথে মিমাংসা করে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।

মাম হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক বাবলু জানান, রোগীকে বাঁচানোর জন্য ক্লিনিক কর্তৃপক্ষের অবহেলা ছিল না। ডাক্তারের অসাবধানতারকারণে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে রোগীর মৃত্যু হয়েছে বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও সিভিল সার্জন ডা. আবু মো. খায়রুল কবির জানান, বিভিন্ন ক্লিনিকের নামে নানা রকম অভিযোগের বিষয়ে জানা গেছে। এ সকল বিষয়ে তদন্ত সাপেক্ষে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।