প্রশংসার সাগরে ভাসছেন ইমরুল কায়েস

টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ইমরুল কায়েসের সেঞ্চুরি আর সাইফউদ্দিনের দারুণ হাফ সেঞ্চুরিতে ভর করে ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ২৭১ রান তোলে বাংলাদেশ।

জবাবে এখন ব্যাটিং করতে নেমে ৫০ ওভার খেলে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৪৩ রান করে জিম্বাবুয়ে। ফলে ২৮ রানের বিশাল জয় পেল বাংলাদেশ।

এর অাগে চেফাস ঝুওয়াওকে বোল্ট আউট করে টাইগার মুস্তাফিজ। পরে টেইলরকে বোল্ট আউট করে নাজমুল অপু। এরপর সিকান্দার রাজাকেও বোল্ট অাউট করে টাইগার নাজমুল অপু। পরে ক্রেইগ আরভিনকে বোল্ট আউট করে টাইগার মিরাজ। পরে অাবারো উইকেট পায় মিরাজ; ফেরালেন পিটার মুরকে। পরে ফজলে মাহমুদের ঢিলে রান আউটে সাজঘরে ফিরেন ডোনাল্ড তিরিপানো।

ম্যাচটি সরাসরি ম্যাচটি সম্প্রচার করে বিটিভি। এছাড়া দুটি চ্যানেলও দেখায়- গাজী টিভি ও স্টার স্পোর্টস সিলেক্ট ১ ও র‌্যাবিটহোল ইউটিব চ্যানেলে।

এর আগে ইমরুল কায়েসের ক্যারিয়ারসেরা ইনিংসে ভর করে লড়াইয়ের পুঁজি পায় বাংলাদেশ। এক পাশ আগলে লড়ে গেছেন ‘যোদ্ধার’ মতো। টস জিতে ব্যাটিং নেমে যেখানে উইকেট বৃষ্টি হয়েছে বাংলাদেশের সেখানে দিশা দেখিয়েছে ইমরুলের ব্যাট। শুধু উইকেটেই থাকেননি শেষ দিকে মোহাম্মদ সাইফুদ্দিনকে সঙ্গে নিয়ে ঝড় তুলেছেন। জিম্বাবুয়ের সামনে দাঁড় করিয়েছেন ২৭২ রানের লক্ষ্য।

শুরুতে ওপেনিং জুটি নামেন লিটন ও ইমরুল। তবে ভাল করতে পারেননি লিটন। ৪ রান করে আউট হলেন লিটন দাস। পরে নামেন ফজলে মাহমুদ। তিনিও ভাল করতে পারেননি। ০ রানেই সাজঘরে ফিরেন তিনি। পরে ক্রিজে নামেন রহিম। ১৫ রান করে আউট হন মুশফিকুর রহিম। পরে ব্যাটিংয়ে নামেন মিথুন। ৩০ রান করে তিনিও সাজঘরে ফিরেন। পরে নামনে মাহমুদুল্লাহ। ০ রানেই আউট হন তিতি।

পরে ব্যাটিংয়ে নেমে ১ রানেই সাজঘরে ফিরেন মিরাজ। পরে ব্যাটিংয়ে নামেন সাইফুদ্দিন। হাফসেঞ্চুরি করে আউট হন সাইফুদ্দিন। ইমরুল ১৪০ বল খেলে ১৪৪ রান করে থামেন ইমরুল কায়েস। মাশরাফী ২ রান ও মুস্তাফিজ ১ রানে অপরাজিত থাকেন।