রোহিঙ্গাদের হামলায় জার্মান সাংবাদিক আহত, মালামাল লুট

মা ও দুই শিশু কন্যাকে অপহরণের অভিযোগ তুলে শত শত রোহিঙ্গারা জার্মান সাংবাদিকদের উপর হামলা চালিয়েছে। হামলায় তিন জার্মান সাংবাদিকসহ চারজন গুরুতর আহত হয়েছেন। এ সময় সাংবাদিকদের ব্যবহৃত গাড়ি ভাংচুর ও মালামাল লুটপাট করে রোহিঙ্গারা। বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে লম্বাশিয়া বাজারে এ ঘটনাটি ঘটে।

জার্মানির সাংবাদিকদের বহনকারী গাড়ির চালক কক্সবাজার টেকপাড়া গ্রামের নবী আলম (৩০) জানান, তারা বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে কুতুপালং ৪ এক্সটেনশন ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের নিকট থেকে বিভিন্ন সাক্ষাৎকার ও ছবি ধারণ করেন। তাদের রুটিন ওয়ার্ক শেষে সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে লম্বাশিয়া ১নং ক্যাম্পে বুশেরা বেগম (৯), কাচুনামা আকতার (৮) ও তাদের মাতা হাসিনা আকতারের (৩৫) সাক্ষাৎকার গ্রহণ করেন জার্মান সাংবাদিকরা।

সাক্ষাৎকার শেষে তাদের নিয়ে লম্বাশিয়া বাজারে আসেন সাংবাদিকরা। এ সময় তাদের কাপড়চোপড় কিনে দেন। পরে তাদের গাড়িতে করে বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার সময় শত শত রোহিঙ্গা দা, কিরিচ, লাঠিসোটা নিয়ে গাড়ি গতিরোধ করে ভাংচুর চালায়। রোহিঙ্গাদের এলোপাথাড়ি মারধরে জার্মান সাংবাদিক ইউচো লিওলি, গ্রান্ডস ষ্টাফ, ষ্ট্যাটিউ এপল গুরুতর আহত হন।

এ সময় রোহিঙ্গারা জার্মান সাংবাদিকদের ক্যামেরা, সাউন্ড রেকর্ডার, লাইসেন্স, মানিব্যাগ, তিনটি লাগেজ, পাসপোর্টসহ গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র লুটপাট করে জার্মান সাংবাদিকদের জিম্মি করে রাখে। খবর পেয়ে সেনা ও পুলিশ সদস্যরা লম্বাশিয়া বাজারে রোহিঙ্গাদের ধাওয়া করে সাংবাদিকদের উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় জার্মান সাংবাদিকদের বাংলাদেশী দোভাষী মো. সিহাব উদ্দিন বাদী হয়ে উখিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।ইত্তেফাক