সৌদি আরবে পশ্চিমা পোশাকে রাস্তায় নারী!

ধীরে ধীরে হলেও বিধি-নিষেধের বাঁধনটা আলগা হচ্ছে। বেশ কয়েক মাস ধরেই সৌদি আরবে, বিশেষ করে রাজধানী রিয়াদে প্রথাগত ইসলামি পোশাক ছাড়াই কিছু নারীকে রাস্তায় হতে দেখা যাচ্ছে। তাদেরই একজন মাশায়েল আল-জালাউদ। ইন্টারনেটে এই ‘বিপ্লবী’ নারীর ছবি এখন ভাইরাল। মাশায়েল আল-জালাউদ (৩৩), মানব সম্পদ ক্ষেত্রে কর্মরত একজন সৌদি নারী। তার বেশ কিছু ছবি এখন ইন্টারনেটে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

সম্প্রতি রিয়াদের কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত এক শপিংমলে তাকে দেখা যায় প্রথাগত শরীর ঢাকা পোশাক ছাড়াই। তিনি কমলা রংয়ের একটি জ্যাকেট ও ব্যাগি ট্রাউজার পরে রয়েছেন। মাশায়েলের যে ছবিগুলি সোশ্যাল মিডিয়ায় পাওয়া গিয়েছে, সেখানে দেখা যাচ্ছে, তার দিকে আশেপাশের নারীরা তাকিয়ে রয়েছেন তার দিকে। এমনকি একটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে, তার পাশ দিয়েই হাঁটছেন প্রথাগত মাথা থেকে পা পর্যন্ত ঢাকা কালো পোশাকের কয়েকজন অ্যারাবিয়ান নারী। যেটি বেশ প্রতীকী ছবি হয়ে উঠেছে।

কয়েকজন নারী নাকি মাশায়েলকে কোনও সেলিব্রিটি বলেও ভুল করেছিলেন। তারা জিজ্ঞেস করেন, আপনি কি খুব জনপ্রিয় কেউ? এক নারীতো তাকে মডেল বলেও ভুল করেন। কিন্তু উত্তরে মাশায়েল বলেন, তিনি একজন সাধারণ আরবি মহিলা, যে নিজের মতো বাঁচতে চায়। মাশায়েল একাই নন, বছর পঁচিশের আর এক আরবি মহিলা মানাহেল আল-ওতাইবি-ও এই তালিকায় রয়েছেন। মানাহেল একজন সমাজকর্মী।

প্রথাগত আরবি পোশাক ছেড়ে পশ্চিমী পোশাকে রাস্তায় বের হন। তিনি জানিয়েছেন, রিয়াদে তিনি চার মাস প্রথাগত পোশাক ছাড়াই ঘুরছেন। তিনি তার ইচ্ছে মতো পোশাক পরতে চান, যেটা তার ভাল লাগবে, পছন্দ হবে। আরবে পোশাক নিয়ে কড়াকড়ি কমতে পারে তার ইঙ্গিত মিলেছিল গত বছরই। ক্রাউন প্রিন্স মহম্মদ বিন সলমন সিবিএস-কে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে বলেন, পোশাকের বিধি-নিষেধ কমতে পারে। মাথা থেকে পা পর্যন্ত ঢাকা পোষাক ইসলামে বাধ্যতামূলক নয়।-ঢাকাটাইমস