অবশেষে টি-টুয়েন্টি দল থেকে বাদ সৌম্য সরকার

ত্রিদেশীয় টি-টুয়েন্টি সিরিজের দল থেকে বাদ পড়লেন সৌম্য সরকার। টুর্নামেন্টের তৃতীয় ও চতুর্থ ম্যাচের দলে নির্বাচকরা রাখেন নি এই অলরাউন্ডারকে। অফ ফর্মের কারণেই চট্টগ্রামের ম্যাচ থেকে ছিটকে গেলেন সৌম্য। পরের দুই ম্যাচের জন্য সোমবার সকালে দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। দলে জায়গা পেলেন নতুন মুখ নাঈম শেখ ও আমিনুল বিপ্লব। আছেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

শুধু সৌম্য সরকারই নন, দল থেকে বাদ পড়েছেন ইয়াসিন আরাফাত মিশু, আবু হায়দার রনি ও মেহেদী হাসান। তিনজন না খেলেই ছিটকে গেলেন দল থেকে। এরমধ্যে দলে ডাক পেলেন রুবেল হোসেন, শফিউল ইসলাম, নাঈম শেখ, আমিনুল বিপ্লব ও নাজমুল হোসেন শান্ত। প্রথম দুই ম্যাচে খেলা দলে বড় পরিবর্তনই এনেছেন নির্বাচকরা। কারণটাও সঙ্গত, টি-টুয়েন্টি সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে টাইগারদের পারফরম্যান্স ছিল হতাশাজনক।

সৌম্যর ব্যাটে রান নেই। টুর্নামেন্টে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে করেন মাত্র ৪। রোববার আফগানিস্তানের বিপক্ষে কোন রান না তুলেই ধরেন সাজঘরের পথ। ২০ ওভারের ক্রিকেটের সঙ্গে ঠিক মানিয়েও নিতে পারছেন না এই ব্যাটসম্যান। এ কারণে আপাতত তাকে বিশ্রামেই পাঠালেন নির্বাচকরা। অবশ্য ইয়াসিন আরাফাত মিশু চোট নিয়ে বাদ পড়লেন দল থেকে। নোয়াখালীর এই ক্রিকেটার প্রথমবারের মতো জাতীয় দলে নাম লিখিয়ে ইনজুরিতে পড়লেন।

আবার স্পিনার মেহেদীকে দলে না রাখার কারণটাও সংগত। এমনিতেই খেলে যাচ্ছেন দুই অফস্পিনিং অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন ও আফিফ হোসেন। এ জন্য মেহেদীকে রাখার যৌক্তিকতা পাননি নির্বাচকরা। ঢাকা পর্ব শেষে এবার ওভাই টি-টুয়েন্টি সিরিজের লড়াই চট্টগ্রামে। ১৮ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ লড়বে জিম্বাবুয়ের সঙ্গে। ২১ সেপ্টেম্বর প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান। যাদের কাছে ঢাকা পর্বে দল হেরেছে ২৫ রানে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম দেখায় সাকিব আল হাসানরা পেয়েছেন ৩ উইকেটের জয়।

বাংলাদেশের টি-টুয়েন্টি দল: সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সাব্বির রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, লিটন দাস, আফিফ হোসেন, তাইজুল ইসলাম, রুবেল হোসেন, শফিউল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান, সাইফউদ্দিন, নাঈম শেখ, আমিনুল বিপ্লব ও নাজমুল হোসেন শান্ত।
সূত্র: বার্তা২৪