‘আমাকে ছোঁবে না, আমি এখন বড় সেলিব্রেটি’

ভারতের রানাঘাট রেলস্টেশন ও এর আশপাশের লোকেরা ছাড়া তেমন কেউই চিনত না সংগীতশিল্পী রানু মণ্ডলকে। কেননা ওই জায়গাটুকু ঘিরেই ছিল তাঁর বিচরণ। কিন্তু সময় বদলেছে, অন্তর্জালের বদৌলতে রানু মণ্ডলকে এখন আন্তর্জাতিক তারকা হিসেবে অভিহিত করছেন অনেকেই। তবে সময় বদলে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কি বদলে গেলেন রানু, এমন প্রশ্ন এর আগেও উঠেছিল। এবার একটি ভিডিও প্রকাশ্যে আসায় সেই প্রশ্ন যেন আরো জোরালো হলো।

হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে জানা যায়, তারকাখ্যাতি পাওয়ার পর বেশ ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন রানু। খানিক ফুরসত পেলে ঘুরেও বেড়াচ্ছেন তিনি। আর ‘কলকাতার লতাজি’খ্যাত ওই সংগীতশিল্পীকে কাছে পেয়ে স্বাভাবিকভাবেই ভক্তদের মধ্যে দেখা দেয় আগ্রহ, উচ্ছ্বাস। সম্প্রতি একটি দোকানে কেনাকাটা করতে যান রানু। সেখানে এক নারীভক্ত তাঁকে পেয়ে খানিক স্পর্শ করে ডাক দেন। আর এতেই খেপে যান রানু। তিনি ওই নারীর অনুকরণে তাঁর ঘাড়ে হাত দিয়ে বলেন, ‘এসব কী হচ্ছে!’

ওই ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন অনেকেই। অনেকেই আলোচিত ওই ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে শেয়ার করে ক্ষোভ উগড়ে দেন। এক ব্যক্তি তাঁর আইডিতে শেয়ার করা ভিডিওর ক্যাপশনে রানুকে বিদ্রুপ করে লেখেন, ‘আমাকে ছোঁবে না, আমি সেলিব্রেটি : রানু মণ্ডল।’

ভারতের কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী লতা মঙ্গেশকরের গাওয়া ‘এক পেয়ার কা নাগমা’ গানটি গেয়ে আলোচনার শীর্ষে চলে আসেন রানু। তাঁর অসাধারণ গায়কীর প্রশংসায় মেতে ওঠেন অসংখ্য মানুষ। এর পর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি রানুকে। ডাক পান ভারতের প্রখ্যাত সুরকার, গীতিকার, গায়ক হিমেশ রেশমিয়ার সঙ্গে গান গাওয়ার।

এরই মধ্যে সিনেমায় প্লেব্যাক করেছেন তিনি। হিমেশ রেশমিয়ার পরবর্তী ছবি ‘হ্যাপি হার্ডি অ্যান্ড হীর’-এর জন্য গান গেয়েছেন রানু। রানুর ‘তেরি মেরি কাহানি’ গানটি মুক্তিও পেয়েছে।