অঝোরে কাঁদলেন ক্রিকেটার শাহাদাত হোসেন

একটা সময়ে জাতীয় দলের অটোমেটিক চয়েজ ছিলেন শাহাদাত হোসেন রাজিব। ২০০৫ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত ৩৮টি টেস্ট, ৫১টি ওয়ানডে আর ৬টি- টোয়েন্টি ম্যাচ খেলে ১২৫ উইকেট নিয়েছেন তিনি। জাতীয় দলে সাবেক হয়ে যাওয়া ৩৩ বছর বয়সী এ ডানহাতি পেসার এখন ঘরোয়া ক্রিকেট খেলেই সময় কাটান। রোববার অনুষ্ঠিত বিপিএল সপ্তম আসরের নিলামে দল পাননি রাজিব।

ঘরোয়া ক্রিকেটই তার রুটি-রুজির একমাত্র মাধ্যম। অথচ সেই লোকাল ক্রিকেটেও নি’ষি’দ্ধ হচ্ছেন। সম্প্রতি জাতীয় লিগে নিজ দলের ক্রিকেটার মোহাম্মদ আরাফাতকে শা’রী’রি’কভাবে লা’ঞ্ছি’ত করেন। যে কারণে ম্যাচ রেফারি শাহাদাতের বি’রু’দ্ধে ক্রিকেট বোর্ডে রিপোর্ট জমা দিয়েছেন। লিগের নিয়ম অনুযায়ী এই অ’প’রা’ধের জন্য এক বছর নি’ষি’দ্ধ হওয়ার পাশাপাশি ৫০ হাজার টাকা আর্থিক জ’রি’মা’নাও হতে পারে রাজিবের।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সোমবার সন্ধ্যায় শাহাদাত হোসেন রাজিব বলেন, ‘আমি আরাফাতকে বলেছি বলটি শাইন করতে। এটা বলার পর সে আমার সঙ্গে উচ্চবাক্য শুরু করে’। শাহাদাত আরও বলেন, ‘আরাফাত আমার সঙ্গে যখন বা’কবি’ত’ণ্ডা করতে ছিল তখন মোহাম্মদ শহীদ এসে ওকে বলল, রাজিব ভাই তোমার চেয়ে অনেক সিনিয়র। ওনার সঙ্গে এভাবে কেন কথা বলছ? এরপরও আরাফাত আমার সঙ্গে ঝ’গ’ড়া করতেই থাকে। তখন মে’জা’জ হা’রি’য়ে ফেলি’।

রাজিব আরও বলেন, সংবাদ মাধ্যমে যেটা প্রকাশ পেয়েছে তা সঠিক নয়। ওকে আমি কি’ল-ঘু’ষি-লা’থি মারিনি। শুধু ধা’ক্কা দিয়েছিলাম। এরপর অবশ্য দুজনেই মিলে গেছি। বিষয়টি নিয়ে ম্যাচ রেফারি রিপোর্ট করেছেন। আমাদেরকে হয়তো ক্রিকেট বোর্ডে ডাকতে পারে। কান্নাজড়িত কণ্ঠে শাহাদাত হোসেন রাজিব বলেন, ‘ভাই জাতীয় দলে নেই, বিপিএলেও দল পাইনি। ঘরোয়া ক্রিকেট খেলেই সংসার চালাই।

সামনে অনেক খেলা আছে। যদি খেলতে নাই পারি তাহলে কী করে চলব? আমি ভুল করে ফেলেছি। আমার ওই কর্মকাণ্ডের জন্য আমি ল’জ্জি’ত। আমি ক্রিকেট বোর্ডে যাব নিজের ভুল স্বী’কা’র করে দুঃ’খ প্রকাশ করব’।