হলে নবজাতককে ঘুম পাড়িয়ে পরীক্ষা দিলেন মা

সাতক্ষীরা সরকারি কলেজে চলছিল অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষা। আর সেখানেই একটি হলে নিজের নবজাতককে পাশে শুয়ে রেখেই পরীক্ষা দিয়েছেন মা আশুরা আক্তার পিংকি। বুধবার (৪ ডিসেম্বর) পাঁচ দিন বয়সী নবজাতককে নিয়ে হাসপাতাল থেকে পরীক্ষা কেন্দ্র পৌঁছে যান তিনি, অংশগ্রহণ করেন পরীক্ষায়। রাজনৈতিক সংগঠন বিষয়ের পরীক্ষা ছিল পিংকির।পিংকি সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার সখিপুরের কাজীমহল্লা গ্রামের শেখ রাজু আহমেদের বড় মেয়ে এবং পার্শ্ববর্তী কোড়া গ্রামের মাহমুদুল হাসান সুজনের স্ত্রী।

পরীক্ষা শেষে পিংকি বলেন, সুজন বিয়ের আগে আমাকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল- লেখাপড়া চালিয়ে যেতে সাহায্য করবে। আমিও লেখাপড়া চালিয়ে যেতে চাই। সবাই আমার পাশে দাঁড়িয়েছে। আমার শ্বশুর-শাশুড়িও প্রয়োজনীয় সহায়তা দিচ্ছেন। তা না হলে এ পথ পাড়ি দেয়া কঠিন হতো।কলেজের অনার্স পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক কাজী আসাদুল ইসলাম বলেন, পিংকি সাতক্ষীরা সরকারি কলেজে বাংলায় অনার্স পড়ছে। পড়াশোনার প্রতি তার আগ্রহ প্রবল। সে এবার দ্বিতীয় বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষা দিচ্ছে। আগে ৫টা বিষয়ে পরীক্ষা হয়ে গেছে। বুধবার রাজনৈতিক সংগঠন বিষয়ের পরীক্ষা দিয়েছে। এখনও তার একটা বিষয়ের পরীক্ষা বাকি রয়েছে।

সদ্যোজাত সন্তানকে নিয়ে স্ত্রীর পরীক্ষা দেয়ার বিষয়ে পিংকির স্বামী মাহমুদুল হাসান সুজন বলেন, হাসপাতাল থেকে সরাসরি কেন্দ্রে গিয়ে পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে পিংকি। সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার আগে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যাওয়ার পথে পিংকি বারবার জানতে চাইছিল- পরীক্ষা দিতে পারবে কি-না। তার আগ্রহ দেখে আমিও মুগ্ধ। আমাদের পরিবারের সবাই চায় সে লেখাপড়া করুক।সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের ডা. মাহফুজা আক্তার ও ডা. সাইফুল্লাহ আল কাফির তত্ত্বাবধায়নে কন্যাসন্তানের জন্ম দেন পিংকি।

তথ্য সূত্র : সময় নিউজ