তিনটি ঢেঁড়সেই নিয়ন্ত্রণে থাকবে ডায়াবেটিস : গবেষণা

বর্তমান বিশ্বে ডা’য়াবেটিস একটি ভয়’ঙ্কর ম’রণ রোগে পরিণত হয়েছে। অল্প বয়সেই অনেককেই ডায়াবেটিসে আক্রা’ন্ত হতে দেখা যায়। যা বংশগতভাবে বা নিজেদের কিছু অসতর্কতার জন্য হয়ে থাকে। সম্প্রতি প্রকাশিত একটি সমীক্ষার রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, ১৯৮০ সালে বিশ্বে ডায়া’বেটিসে আক্রা’ন্ত রোগীর সংখ্যা ছিল ১০ কোটি ৮০ লক্ষ। বর্তমানে যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪২ কোটি ২০ লক্ষ।

ডায়া’বেটিস একটি বিপাকীয় প্রক্রিয়া সংক্রা’ন্ত ব্যাধি। ডায়া’বেটিসের ফলে দে’হ পর্যাপ্ত পরিমাণে ইন’সুলিন উৎপাদনে অক্ষম হয়ে পড়ে। ফলে রক্তে সুগারের মাত্রা অস্বাভাবিক হারে বেড়ে যায়। এই রোগের ক্ষেত্রে সবচেয়ে দুর্ভা’গ্যজনক বিষয়টি হল, ও’ষুধ, শরীরচর্চা এবং খাওয়া-দাওয়া নিয়ম মেনে করলে ডায়া’বেটিস নিয়ন্ত্র’ণে থাকে, কিন্তু তা কোনো ভাবেই পুরোপুরি নিরাময় করা সম্ভব নয়।

২০১৭ সালে পাবলিক লাইব্রেরী অব সাইন্স জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণায় জানা গেছে, ডায়া’বেটিস নিয়ন্ত্র’ণে রাখতে তিন ঢেড়স-ই যথেষ্ট। তাই রোজ রোজ ইন’সুলিন ইনজে’কশন না নিয়েও ডায়া’বেটিস নিয়ন্ত্র’ণে রাখতে পারেন এই ঘরোয়া উপায়ে, তাও একেবারে সামান্য খরচে। প্রতিদিন মাত্র তিনটি ঢেঁড়সেই র’ক্তে সু’গারের মাত্রা নিয়’ন্ত্রণে থাকবে। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক কীভাবে তা সম্ভব-

তিনটি ঢেঁড়স ভাল করে পানিতে ধুয়ে নিন। > এরপর সেগুলোর সামনের দিকের সামান্য অংশ (ডগার অংশ) এবং বৃন্তের অংশ বাদ দিয়ে দিন। > এবার ঢ্যাড়সগুলো লম্বা করে চিরে দিয়ে সারা রাত এক গ্লাস পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। > সকালে উঠে এই ঢ্যাড়স ভেজানো পানি খেয়ে নিন। রক্তে সুগারের মাত্রা কতটা কমল তা হাতেনাতে প্রমাণ পেতে এই পানি খাওয়ার আগে ও পানি খাওয়ার দু’ ঘণ্টা পরে ব্লাড সুগার পরীক্ষা করুন।

তফাৎটা নিজেই দেখতে পাবেন। তবে এর সঙ্গে শরীর সুস্থ রাখতে প্রতিদিন অন্তত ৪০ মিনিট স্বাভাবিক গতিতে হাঁটাহাঁটি করুন। প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। ডা’য়াবেটিসের আ’তঙ্ক কাটিয়ে সুস্থভাবে বাঁচুন।