সূর্যগ্রহণ চলাকালে যা করা যাবে না

শুরু হয়েছে বলয়গ্রাস সূর্যগ্রহণ। আজ বৃহস্পতিবার (২৬ ডিসেম্বর) সকাল ৮টা ২৯ মিনিট ৫৩ সেকেন্ডে শুরু হয় সূর্যগ্রহণ। শেষ হবে দুপুর ২টা ৫ মিনিট ৩৬ সেকেন্ডে। সূর্যগ্রহণ চলাকালে কিছু সাবধানতা অবলম্বন করার পরামর্শ দিয়েছে নাসা। এসব সাবধানতা নিচে তুলে ধরা হলো : খালি চোখে কয়েক সেকেন্ডের জন্য সূর্য গ্রহণ দেখলেও তা রেটিনার ওপর প্রভাব ফেলে। যার কারণে একটা চোখে দৃষ্টিশক্তিও হারাতে পারে মানুষ।

পেরিস্কোপে, টেলিস্কোপ, সানগ্লাস বা দূরবীন, কোনও কিছুর সাহায্যে গ্রহণ দেখার সময় সূর্যের দিকে সরাসরি তাকাতে নি’ষেধ করা হয়েছে। গ্রহণের সময় সূর্য রশ্মি অত্যন্ত সংবে’দনশীল থাকে যা চোখে প্রভাব ফেলতে পারে। সানগ্লাস বা ঘষা কাঁচ দিয়েও এই গ্রহণ দেখতে বারণ করেছে নাসা। কারণ এইগুলো নিরাপদ না। সূর্যগ্রহণ চলাকালে খাবার খেতে বারণ করেছে আয়ুর্বেদ শা’স্ত্র। বৃদ্ধ, অসু’স্থ ও গ’র্ভবতী নারীরাই কেবল হালকা খাবার খেতে পারবেন বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

অনেকে মনে করেন, গ’র্ভবতী নারীর গ’র্ভে থাকা বা’চ্চার জন্য সূর্যগ্রহণ অত্যন্ত বিপ’জ্জনক। তাই পূর্বে গ’র্ভবতী নারীদের গ্রহণ চলাকালে ঘরের বাইরে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হতো না। গ্লাস বা সোলার ফিল্টার দিয়েই এই গ্রহণ দেখা উচিত। বাজারে আইএসও স্বীকৃত বিশেষ সোলার গ্লাস দিয়ে একমাত্র এই গ্রহণ দেখা নিরাপদ। সেসব গ্লাস ব্যবহারের আগে অবশ্যই ব্যবহার নির্দেশিকা পরে নিতে উপদেশ দিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

কোনওভাবে সেই গ্লাস ভা’ঙা বা দাগ থাকলে ব্যবহার করতে নি’ষেধ করেছে তারা। গ্রহণের সময় খালি চোখে সূর্যের দিকে তাকালে এক্লিপস ব্লাই’ন্ডনেস বা সোলার রেটিনোপ্যা’থি হতে পারে। সূর্য যখন পুরোপুরি ঢাকা থাকে (পূর্ণগ্রহণ), তার চেয়ে যখন আংশিক ঢাকা থাকে অর্থাৎ আংশিক সূর্যগ্রহণকালে সূর্যের দিকে তাকালে চোখের ক্ষতি হওয়ার আ’শঙ্কা বেশি থাকে।

অতিবেগুনি রশ্মি প্রতিরোধী বিশেষ চশমা চোখে দিয়ে সূর্যগ্রহণ দেখা যেতে পারে। ছবি তুলতে হলেও ক্যামেরায় সোলার ফিল্টার ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা, অন্যথায় ক্যামেরার ক্ষ’তি হতে পারে।-কালের কণ্ঠ অনলাইন