ঘরের মাটিতে ভারতকে বড় লজ্জা দিয়ে ১০ উইকেটে জিতলো অস্ট্রেলিয়া

শেখর-রাহুলের জুটি ভাঙার পর আর হল না তেমন কোনও জুটি। বরং তাসের ঘরের মতো পড়তে থাকল উইকেট। যার ফলে আরব সাগরের পারে অস্ট্রেলিয়ার বি’রুদ্ধে সিরিজের প্রথম একদিনের ম্যাচে ভু’গতে হল ভারতকে। ইনিংস শেষের দিকে প্রত্যাশিত গতি পেল না একেবারেই। শেষ পর্যন্ত ৪৯.১ ওভারে ২৫৫ রানে থামল টিম ইন্ডিয়া। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ডেভিড ওয়ার্নার ও অ্যারন ফিঞ্চ ঝড় তুলেন।

মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড় স্টেডিয়ামে ৩৭.৪ ওভারে বিনা উইকেটে জয় তুলে নেয় অস্ট্রেলিয়া। ওয়ার্নার ১১২ বলে ১২৮ রানে ও ফিঞ্চ ১১৪ বলে ১১০ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন। এই জয়ের জয়ের ফলে তিন ম্যাচ সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল ফিঞ্চ-বাহিনী! ২৮ থেকে ৩৩, এই পাঁচ ওভারের মধ্যে ৩০ রানে চার উইকেট হা’রিয়ে ঘেঁটে গিয়েছিল টিম ইন্ডিয়ার ইনিংস। নেমেছিল মিডল অর্ডারে ধ্ব’স।

যা ল’ড়াইয়ে ফিরিয়ে এনেছিল অস্ট্রেলিয়াকে। ১০ বলের ফারাকে ড্রেসিংরুমে ফিরেছিলেন লোকেশ রাহুল ও শিখর। যার ফলে আচ’মকাই চা’পে পড়ে গিয়েছিল ভারতীয় ইনিংস। সেই চা’পই কয়েকগু’ণ বেড়েছিল। কারণ, চার নম্বরে নামা বিরাট কোহালিও বেশি ক্ষ’ণ থাকলেন না। ১৪ বলে ১৬ রানে অ্যাডাম জাম্পাকে ফিরতি ক্যাচ দিয়েছিলেন তিনি। সেই ধা’ক্কা আর সামলে ওঠা যায়নি। নয় বল পরে মিচেল স্টার্কের বলে আ’উট হয়েছিলেন শ্রেয়াস আইয়ারও (৪)। তার খোঁচা জমা হয়েছিল উইকেটকিপার অ্যালেক্স কারের হাতে।

ষষ্ঠ উইকেটে ঋষভ পান্থ ও রবীন্দ্র জাডেজা যোগ করেছিলেন ৪৯ রান। যখন মনে হচ্ছিল দু’জনে ভদ্রস্থ স্কোরে নিয়ে যাবেন, তখনই ফিরলেন জাডেজা (৩২ বলে ২৫)। ঋষভও (৩৩ বলে ২৮)ফিরলেন তারপর। শার্দুল ঠাকুরও (১৩ বলে ১০) ফিরলেন দ্রু’ত। ২১৩ রানে ষষ্ঠ উইকেট পড়ার পর বোঝা গিয়েছিল বড় রান সম্ভব নয়।