মুসলিমদের পক্ষে কথা বলায় মালয়েশিয়ার পণ্য বয়’কট করল ভারত

নাগরি’কত্ব আ’ইন ও কাশ্মীর ইস্যুতে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের সমালো’চনার জেরে দেশটি থেকে পামওয়েল কেনা বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে মোদি সরকার। তবে আর্থিক লোকসান হলেও সত্য বলতে পিছপা হবেন না বলে জানিয়েছেন মাহাথির।জানা গেছে, বার্ষিক ৯ মিলিয়ন টনেরও বেশি পাম তেল কেনা ভারত এ খাতে বিশ্বের বৃহত্তম আমদানিকারক দেশ । মূলত ইন্দোনেশিয়া এবং মালয়েশিয়া থেকে এ তেল সংগ্রহ করে দেশটি।

মালয়েশিয়ার বদলে এখন প্রতি টনে ১০ মার্কিন ডলার বেশি দিয়ে অপরিশোধিত পাম অয়েল ইন্দোনেশিয়া থেকে কিনছে ভারত। মালয়েশিয়া থেকে পামওয়েল না কিনতে নিজ দেশের আমদানিকারকদের সত’র্ক করে দিয়েছে ভারত সরকার। নির্দেশনা অনুযায়ী, ইতিমধ্যে কুয়ালালামপুর থেকে পাম তেলা কেনা বন্ধ করে দিয়েছে ব্যবসায়ীরা। হঠাৎ রফতানি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় স্বভাবতই বড় ধা’ক্কা লেগেছে মালয়েশিয়ার অর্থনীতিতে।

বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম পামওয়েল উৎপাদক দেশ হিসেবে মালয়েশিয়ার ব্যাপক পরিচিতি রয়েছে। অন্যদিকে ভারত এ তেলের বৃহত্তম ক্রেতা। ভারতে অশোধিত তেল পরিশোধনের সঙ্গে যুক্ত একজন শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তি রয়টার্সকে বলেন, ‘আনুষ্ঠানিকভাবে মালয়েশিয়া থেকে অপরিশোধিত পাম তেল আমদানিতে কোনো নি’ষেধা’জ্ঞা নেই। তবে সরকারের নির্দেশনার (অনানুষ্ঠানিক) কারণে কেউ কিনছে না।’ তিনি জানান, সরকারের নির্দেশনার ফলে এখন বেশি দামে ইন্দোনেশিয়া থেকে পাম তেল আমদানি করতে হচ্ছে ব্যবসায়ীদের।

কাশ্মীরে নিপীড়িত মুসলমানদের পক্ষাবল’ম্বন করায় মালয়েশিয়াকে একঘরে করার পরিকল্পনা নিয়েছিল ভারত। এ জন্য গত অক্টোবরে মালয়েশিয়া থেকে পামওয়েল কেনা বন্ধের পরিকল্পনা করেছিল দেশটি। পরে মোদি সরকারের মুসলিমবি’দ্বেষী নাগরি’কত্ব আ’ইন নিয়েও ক্ষো’ভ প্রকাশ করেন মাহাথির। তিনি বলেছিলেন, ‘আমি দুঃ’খের সঙ্গে দেখছি ধর্মনির’পেক্ষ রাষ্ট্র বলে দাবি করা ভারত এখন কিছু মুসলিমদের নাগরি’কত্ব থেকে ব’ঞ্চিত করতে উদ্যোগ নিচ্ছে।

আমরা যদি এখানে এটি বাস্তবায়ন করি, আমি জানি না তাহলে কী ঘটবে! বি’শৃ’ঙ্খলা ও অ’স্থিরতা তৈরি হবে এবং সবাই ভোগা’ন্তির শিকার হবে।’ সূত্র:সময়ের কণ্ঠস্বর।