প্রথম আলো সম্পাদকসহ ১০ জনের বি’রুদ্ধে গ্রে’প্তারি পরোয়ানা

ঢাকা রেসিডেন্সিয়াল স্কুলের শিক্ষার্থী নাঈমুল আবরার রাহাতের মৃ’ত্যুর মা’মলায় প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান ও আনিসুল হকসহ ১০ জনের বি’রুদ্ধে গ্রে’প্তারি পরোয়ানা জারি করেছে আদালত। বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারি) ঢাকার অতিরিক্ত মহানগর হাকিম কায়সারুল ইসলাম মা’মলার অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে এ গ্রে’প্তারি পরোয়ানা জারি করেন। গত ১ নভেম্বর শুক্রবার বিকেলে কলেজ ক্যাম্পাসে ‘কিশোর আলোর’ একটি অনুষ্ঠান চলাকালীন বি’দ্যুৎস্পৃ’ষ্ট হয় নাইমুল আবরার রাহাত।

পরে মহাখালীর ইউনিভার্সাল হাসপাতালে নেওয়ার ডাক্তার তাকে মৃ’ত ঘোষণা করেন।আবরারের সহপাঠীদের দাবি, ঘটনা চেপে রেখে আবরারকে কলেজের পাশের কোনো হাসপাতালে না নিয়ে মহাখালীর একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎ’সকরা তাকে মৃ’ত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় আয়োজকদের অব্যবস্থা’পনাকে দায়ী করে শিক্ষার্থীরা।

পরে আবরারের বাবা মো. মুজিবুর রহমান গত ৬ নভেম্বর প্রথম আলো সম্পাদকসহ অ’জ্ঞাতপরিচয় কয়েকজনের বি’রুদ্ধে আদালতে একটি মা’মলা করেন। দুপুরে মোহাম্মাদপুর থা’না-পুলিশ প্রথম আলোর সম্পাদকসহ ১০ জনের নামে আদালতে ত’দন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়। এরপর বাদীপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত ১০ জনের নামে গ্রে’প্তারি পরোয়ানা জারির আদেশ দেন। পরোয়ানা পাওয়া ব্যক্তিরা হলেন- প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান, সহযোগী সম্পাদক আনিসুল হক,

হেড অব ইভেন্ট এন্ড একটিভেশন কবির বকুল, নির্বাহী শুভাশীষ প্রামাণিক, নির্বাহী শাহপরাণ তুষার, কিশোর আলোর জ্যেষ্ঠ সহ-সম্পাদক মহিতুল আলম, ডেকরেশন ও জেনারেটর সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের জসীম উদ্দিন, মোশাররফ হোসেন, সুজন ও কামরুল হাওলাদার।