যুক্তরাষ্ট্রকে ১০ বারের বেশি ধ্বং’স করা হবে : খামেনি

দীর্ঘ আট বছর বিরতির পর তিনি জুমার নামাজ পড়ালেন ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি। জুমার খুতবায় খামেনি দখলদার ইসরাইলকে একটি ক্যা’ন্সা’রের টিউমার বলে আখ্যায়িত করে কেউ দেশটির বি’রোধিতা করলে তাকে সহায়তার ঘোষণা দিয়েছেন। এছাড়া ইরানের পরমাণু কর্মসূচির ওপর যে কোনো মার্কিন হা’মলার বি’রুদ্ধে হুঁশি’য়ারি দিয়ে তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র দশ বারের বেশি ধ্বং’স করা হবে।

জুমার নামাজ পড়তে আসা মুসল্লিদের হাতে হাতে ইরানি জেনারেল সোলাইমানি ও ইরাকি কমান্ডার আবু মাহদি আল মোহানদেসের ছবি শোভা পাচ্ছিল। এসময় অনেকেই আমেরিকা ও ইসরাইলের পতাকায় আ’গুন দিয়েছেন। এর আগে সর্বোচ্চ নেতা নামাজ পড়াবেন এ তথ্য জানতে পেরে আজ শুক্রবার বিপুল সংখ্যক মানুষ সেখানে উপস্থিত হন। খামেনি বলেন, ড্রোন হা’মলা চালিয়ে কাসেম সোলাইমানিকে হ’ত্যা মার্কিন প্রশাসনের জন্য ল’জ্জার। এটা তাদের স’ন্ত্রা’সী চরিত্র।

এর আগে এই হ’ত্যা’কা’ণ্ডের কঠিন প্রতি’শোধ নেয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন তিনি। গত ৮ জানুয়ারি ইরাকে মার্কিন ঘাঁটিতে ক্ষে’পণা’স্ত্র হা’মলা চালিয়েছে ইরান। ওই হা’মলার প্র’শংসা করে খামেনি বলেন, উদ্ধ’ত শক্তির মুখে থা’প্পর দেয়ার শক্তি ইরানের রয়েছে। এতে বোঝা যাচ্ছে, আল্লাহ আমাদের সহায়। গত সপ্তাহে তেহরানে ‘ভুলব’শত’ ক্ষে’পণা’স্ত্র হা’মলায় ইউক্রেনের একটি বিমান বি’ধ্ব’স্ত হওয়ার পর দেশটিতে ব্যাপক বি’ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

মার্কিন নিষে’ধাজ্ঞায় ইরানের অর্থনৈতিক মন্দায় ব্যাপক চাপে রয়েছে ইরানের সরকার। বুধবার জাতীয় ঐক্যের আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। ইরানে মতানৈ’ক্যের বিরল দৃষ্টা’ন্তের মধ্যেই কীভাবে বিমানটি ভূপা’তিত হয়েছে, তার পূর্ণ বিবরণ দিতে সামরিক বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন রুহানি।

সূত্র : ডয়চে ভেলে।