যুব বিশ্বকাপে জিম্বাবুয়েকে উড়িয়ে দিয়ে শুরু বাংলাদেশের

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে শুভ সূচনা করেছে বাংলাদেশ। গ্রুপপর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতিতে ৯ উইকেটে হারিয়েছে আকবর আলীর দল।দক্ষিণ আফ্রিকার পচেফস্ট্রুমে শনিবার টস হেরে ব্যাট করতে নেমে জিম্বাবুয়ে ২৮.১ ওভারে ৬ উইকেটে ১৩৭ রান করার পর বৃষ্টিতে বেশ কয়েক ঘণ্টা খেলা বন্ধ থাকে। বৃষ্টি থামলে জিম্বাবুয়ে আর ব্যাটিংয়ে নামতে পারেনি। ২২ ওভারে বাংলাদেশকে দেওয়া হওয়া ১৩০ রানের লক্ষ্য। পারভেজ হোসেন ইমনের ফিফটিতে বাংলাদেশ সেটি পেরিয়ে যায় ৬৪ বল বাকি থাকতে।

বৃষ্টির চোখরাঙানি ছিল, ছিল একটি পয়েন্ট হারানোর শ’ঙ্কা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত প্রকৃতি বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি তরুণ ক্রিকেটারদের সামনে। বৃষ্টিভেজা লড়াইয়ে জিম্বাবুয়েকে ডি/এল মেথডে ৯ উইকেটে হারিয়ে অনূর্ধ্ব-১৯ যুব বিশ্বকাপে শুভসূচনা করেছে বাংলাদেশ।দক্ষিণ আফ্রিকার পচেফস্ট্রুমে টস জিতে ফিল্ডিং নিয়ে পঞ্চম ওভারেই দলকে সাফল্য এনে দেন পেসার তানজীম হাসান সাকিব। তার বলে ওয়েসলি মাধেভিয়ারের বিদায়ে ভেঙে যায় ২৯ রানের ওপেনিং জুটি।

দ্বিতীয় উইকেটে ৩৯ রানের জুটি স্বস্তি এনে দিয়েছিল জিম্বাবুয়েকে। কিন্তু বাংলাদেশের দুর্দান্ত বোলিং-ফিল্ডিংয়ে সেটা ‍উবে যেতে সময় লাগেনি। বোলাররা নিয়মিত বিরতিতে উইকেট এনে দিয়েছেন, জ্বলে উঠেছেন ফিল্ডাররাও। স্কয়ার লেগ থেকে শরীফুল ইসলামের সরাসরি থ্রোয়ে লুক ওল্ডনোকে রান আউট করা তো এক কথায় অনবদ্য।জিম্বাবুয়েকে চেপে ধরে বাংলাদেশ যখন জয়ের স্বপ্ন দেখছে, তখনই বৃষ্টি শুরু। ২৯তম ওভারে শুরু হওয়া বৃষ্টির পর জিম্বাবুয়ে ব্যাট করার সুযোগ পায়নি। ৬ উইকেটে ১৩৭ রানে থামতে হয়েছে তাদের।

তানজীমের মতো একটি করে উইকেট পেয়েছেন শরীফুল, মৃ’ত্যুঞ্জয় চৌধুরী, শামীম হোসেন ও রাকিবুল হাসান। সেনওয়েস পার্কে যে পাঁচজন বল হাতে নিয়েছেন, সাফল্য পেয়েছেন প্রত্যেকে। চোটের কারণে শ’ঙ্কা থাকলেও মৃ’ত্যুঞ্জয় খেলেছেন ঠিকই, কিন্তু তেমন ছন্দে ছিলেন না বাংলাদেশ দলের প্রধান পেসার। বাঁহাতি পেসে ৪.১ ওভারে রান দিয়েছেন ২৮। আবারও বৃষ্টির শ’ঙ্কা যেমন ছিল, নেট রানরেট ভালো করার তাড়নাও কম ছিল না। তাই ২২ ওভারে ১৩০ রানের লক্ষ্যে শুরু থেকে ঝড় তুলেছেন তানজীদ হাসান। ১০ বলে ৩টি করে চার ও ছক্কায় ৩২ করে ফিরেছেন।

১৩ বলে ৪১ রানের উদ্বোধনী জুটিটা ভেঙে গেলেও রানের গতি কমেনি। মাহমুদুল হাসানকে নিয়ে আক্র’মণ চালিয়েছেন অন্য ওপেনার পারভেজ হোসেন। দুজনই অপরাজিত থেকে গেছেন, পারভেজ ৩৩ বলে ৫৮ আর মাহমুদুল ২৬ বলে ৩৮ রানে। মাত্র ১১.২ ওভারে জয় নিশ্চিত করে দুটি মূল্যবান পয়েন্ট ঘরে তুলেছে বাংলাদেশ।