করোনা ভা’ইরাস: চীনে পু’ড়িয়ে ফেলা হচ্ছে লা’শ!

চীনজুড়ে উ’দ্বেগজনক হারে ছড়িয়ে পড়া প্রা’ণঘাতী করোনা ভা’ইরাসে আক্রা’ন্ত হয়ে মৃ’তবরণকারী লা’শগুলো সমাধিস্থ না করে পু’ড়িয়ে ফেলা হচ্ছে। দেশটির জাতীয় স্বা’স্থ্য কমিশনের (এনএইচসি) জারি করা আদেশের ভি’ত্তিতে করোনা ভা’ইরাসে মৃ’তদের দে’হ সৎকারে এই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এনএইচসির জারি করা আদেশে বলা হয়,

করোনাভা’ইরাসে আ’ক্রান্ত হয়ে মা’রা যাওয়া ব্যক্তিদের জন্য বিদায় অনুষ্ঠান বা কোনো ধরনের শেষকৃত্যের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা যাবে না। মৃ’তদেহ সৎকার চলাকালে কেউ সেখানে থাকতে পারবে না। তবে মৃ’তদেহ পু’ড়িয়ে ফেলার পর দেহাবশেষ সংগ্রহ করতে পারবে স্বজ’নরা। এদিকে গত শনিবার এনএইচসি এই আদেশ জারির পর থেকে চীনের শবদাহের চুল্লিগুলোতে কাজের চাপে কর্মীদের রী’তিমতো নাভি’শ্বাস উঠেছে।

প্রতিদিনই চুল্লিগুলোতে দাহের জন্য আসা মৃ’তদেহের সংখ্যা বাড়তে থাকায় পরিস্থিতি সামাল দিতে কর্মীদের দিনে প্রায় ২৪ ঘণ্টাই কাজ করতে হচ্ছে। সরকারি হিসেবে, চীনে প্রা’ণঘাতী করোনা ভাই’রাসে গতকাল বৃহস্পতিবারই ৭৩ জনের মৃ’ত্যু হয়েছে। এর মধ্যে হুবেই প্রদেশেই ৬৯ জন। এছাড়া এ ভা’ইরাসে আ’ক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত সর্বমোট ৬৩৬ জন মা’রা গেছেন। তবে এ সংখ্যা আরও বেশি বলে মনে করছেন বিশেষ’জ্ঞরা।

চীনের বাইরে ফিলিইপাইনে ও হংকংয়ে মা’রা গেছেন দুইজন। অবশ্য ফিলিপাইনে মারা যাওয়া ব্যক্তিও চীনেরই নাগরিক। এই ভা’ইরাসে এখন পর্যন্ত আক্রা’ন্ত মানুষের সংখ্যা ৩১ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহানে প্রথমবারের মতো করোনাভা’ইরাস শনা’ক্ত হওয়ার পর চীনসহ প্রায় ২৫টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে প্রা’ণঘাতী এই ভা’ইরাস। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বিশ্ব স্বা’স্থ্য সংস্থা বিশ্বজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করেছে বিশ্ব স্বা’স্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

এদিকে এ ভা’ইরাসের আক্রা’ন্তের সংখ্যা দ্রুত গতিতে বাড়ার কারণে বিশ্বের অন্যান্য দেশের সঙ্গে কার্যত বিচ্ছি’ন্ন হয়ে পড়েছে চীন। দেশটির নাগরিকদের মাঝে বইছে উ’দ্বেগ আর উৎ’কণ্ঠা।

সূত্র: ডেইলি মেইল ও সিএনএন