কচ্ছপের মাংস দেয়া হচ্ছে করোনাভাইরাস আক্রান্তদের

চীনে নতুন করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৩৬ জনে, আক্রান্তের সংখ্যা ত্রিশ হাজার ছাড়িয়ে গেছে।উহানের একটি করোনাভাইরাস হাসপাতালে কোয়ারেন্টাইনে রাখা রোগীদের রাতের খাবারে কচ্ছপের মাংস দেয়া হয়েছে।চীনা গণমাধ্যমে প্রচার হওয়া এক ভিডিওর বরাতে ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড ডেইলি মেইলের খবরে এমন তথ্য জানা গেছে। ভিডিওতে এক রোগীকে বলতে দেখা গেছে, আজকের খাবারে নরমখোলসের কচ্ছপের মাংস রয়েছে।বন্য প্রাণী থেকে মানুষের শরীরে ছড়িয়েপড়া করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত ৬৩৮জনের মৃত্যু হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিশেষভাবে বাদুর ও সাপ থেকে এই সংক্রামকের বিস্তার ঘটেছে।

চীনা বিজ্ঞানীদের দাবি, বাদুর থেকে মানুষের শরীরে এই ভাইরাস ছড়াতে বনরুইয়ের সম্পর্ক রয়েছে।নরমখোলসের কচ্ছপকে মান্দারিন ভাষায় ‘জিয়া ইউ’ইন’ বলা হয়। ঐতিহ্যবাহী চীনা ওষুধে এটাকে খুবই পুষ্টিকর খাবার বলে আখ্যায়িত করা হয়।লোকজনের বিশ্বাস, প্রোটিনসমৃদ্ধ এই কচ্ছপ তাদের দ্রুত সুস্থ করে তুলবে। বন কিংবা প্রজনন খামার— যেখান থেকেই তাদের আনা হোক না কেন, গরম পানিতে সিদ্ধ করে কচ্ছপের পুষ্টিকর ঝোল বানানো হয়েছে।

চীনের স্বাধীন সংবাদমাধ্যম রেন জিয়ান জেই বেইতে করোনাভাইরাসের অস্থায়ী হাসপাতাল থেকে ধারণ করা একটি ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে। তাতে এক নারী রোগীকে বলতে শোনা গেছে, ভাই ও বোনেরা, দেখেন, আপনারা সামনে থেকে লড়াই করছেন, আমরাও আপনাদের সঙ্গে লড়ছি।এছাড়া এক পুরুষ রোগী তাকে দেয়া বিভিন্ন প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র দর্শকদের দেখাচ্ছেন। যার মধ্যে রয়েছে, তোয়ালে, টুথপেস্ট, টয়লেট পেপার ও স্যান্ডেল।তৃতীয় এক রোগীকে বলতে দেখা গেছে, আজকের খাবারে নরমখোলসের কচ্ছপের মাংসও রয়েছে।