চোখের পাশে গেঁথে আছে টেটা, তবু চাহনিতে ক্ষিপ্রতা!

চোখের ঠিক পাশেই গেঁথে আছে টেটা। তারপরেও ১৮ বছর বয়সী রাজ্জাক মিয়ার চাহনিতে ক্ষিপ্রতা! কত ঘৃ’ণা আর ক্রো’ধই না তার মধ্যে বাসা বেধে আছে! প্রতিপ’ক্ষের কেউও হয়তো তার টেটায় এভাবেই বি’দ্ধ হয়েছেন। সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাস’পাতালে রাজ্জাক মিয়ার মতো অনেকেই শরীরে গাঁথা টেটা নিয়ে আসেন। অবস্থা গু’রু’তর হওয়ায় তাদের সবাইকে দ্রুত সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডি’কেল কলেজ হাসপা’তালে প্রেরণ করা হয়।

মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় জায়গা সং’ক্রান্ত পূর্ববিরো’ধের জেরে তিন পাড়ার লোকজন সংঘ’র্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে আ’হত হন অন্তত ১৫ জন। তাদের মধ্যে ৭ জনকে টেটাবি’দ্ধ অবস্থায় সিলেটে প্রেরণ করা হয়েছে। স্থানীয় ও হাসপা’তাল সূত্রে জানা যায়, দুধের আউটা গ্রামের মো. নুরুল হক গং,

পেয়ার আলী গং ও তাজু মিয়া গংদের মধ্যে জায়গা সংক্রা’ন্ত বি’রোধ নিয়ে কথা কাটা’কাটির এক পর্যায়ে ত্রিপ’ক্ষের মধ্যে এই সং’ঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে। তাৎক্ষণিক আহ’তদের সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপা’তালে নিয়ে আসা হয় এবং পরে সিলেটে পাঠিয়ে দেয়া হয়। খবর পেয়ে তাহিরপুর থা’না পুলি’শ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়’ন্ত্রণে আনে।

এ ঘটনায় সদর হাসপাতাল থেকে দু’পক্ষে’র দুজনকে আ’টক করে জেলা গো’য়েন্দা পুলিশের একটি দল। এছাড়া তাহিরপুর থা’না পু’লিশ আরো ১১ জনকে আট’ক করেছে।