দিনভর রণক্ষে’ত্র দিল্লি; মৃ’তের সংখ্যা বেড়ে ১০

ভারতের সংশোধিত নাগরি’কত্ব আ’ইন-সিএএ’কে কেন্দ্র করে রণক্ষে’ত্রে পরিণত হয়েছে দিল্লি। বি’ক্ষো’ভকারীদের সাথে পুলিশসহ বিজেপি সমর্থকদের সংঘ’র্ষে নিহ’তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০ জনে। সন্ধ্যার দিকে উত্তে’জনাপ্রবণ এলাকাগু’লিতে জারি হয়েছে কারফিউ। সূত্র: আনন্দবাজার।

সিএএ-কে কেন্দ্র করে সংঘ’র্ষের জেরে গত তিন দিন ধরে উত্তাল দিল্লি। সোমবার এক পুলিশ কর্মীসহ সাত জনের মৃ’ত্যু হয়েছিল। মঙ্গলবার সকাল হতেই ফের উ’ত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে উত্তর-পূর্ব দিল্লির বিভিন্ন এলাকায়।

লা’ঠি, রড, ইট-পাটকেল নিয়ে রাস্তায় নেমে পড়তে দেখা গিয়েছে অনেককে। বেলা বাড়তেই উত্তে’জনা আরও বাড়ে। একাধিক দোকানপাট, গাড়িতে আ’গুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। ভজনপুরা, চাঁদ বাগ, করাবল নগরের মতো এলাকা অ’গ্নিগ’র্ভ হয়ে ওঠে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্র’ণে আনতে এ দিনও একাধিক জায়গায় কাঁদানে গ্যাসের শেল ফাটায় পুলিশ।

নিহ’তদের মধ্যে পুলিশের এক সদস্যও রয়েছেন। গেল দু’দিনে গু’লিবি’দ্ধ হয়েছেন অন্তত ৭০ জন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আধাসামরিক বাহিনী মোতায়েন এবং ১৪৪ ধারা জারির পর পরিস্থিতি নিয়’ন্ত্রণে আনার দাবি করে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বন্ধ রয়েছে দিল্লির সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। মার্কিন প্রেসিডেন্টের দিল্লি পৌঁছানোর কয়েক ঘণ্টা আগেই অ’গ্নিগ’র্ভে পরিণত হয় ভারতের রাজধানী।

বি’ক্ষো’ভকারীদের সাথে সহিং’সতায় জড়ায় সরকার দলীয় সমর্থকরা। তাদের ছত্রভ’ঙ্গ করতে গেলে, হ’তাহত হন পুলিশ সদস্যরাও। সিসি ক্যামেরার ভিডিও বিশ্লেষণে, সন্দে’হজনক অ’স্ত্রধা’রীদের চিহ্নিত করার কথা জানিয়েছে পুলিশ।