নিজেদের প্রেমের না জানা গল্প শোনালেন সৌম্য-পূজা

অবশেষে সাত পাকে বাঁধা পড়তে চলেছেন ক্রিকেটার সৌম্য সরকার। প্রেমিকা পূজার সঙ্গে তাঁর ‘লাভস্টোরি’ পরিণতি পেতে চলেছে আজ রাতে। তার নিজের প্রেমকে পরিণতি দেওয়ার জন্যই ছাঁদনাতলায় যাওয়া। সাত পাকে বাঁধা পড়ার লগ্ন বা বিয়ের বাঁধনে বাঁধা পড়া যে যাই বলুক, সৌম্যর এই ইনিংসের শুরুটা কেমন ছিল তা নিয়ে চলছে বিস্তর আলোচনা।

কেন সৌম্য এতদিন প্রেমের বিষয়টা চেপে রেখেছিলেন? হবু কনে প্রিয়ন্তি দেবনাথ পূজাকে নিয়ে সে কথাই জানিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের ভেরিফায়েড পেজে একটি ভিডিও ছেড়েছেন সৌম্য। সেখানেই সৌম্য-পূজা জানিয়েছেন, নিজেদের প্রেমের ‘না-জানা গল্প।’ তা শুনে অনেকে হ’তবা’ক অজ্ঞতার কারণে।

সৌম্য কখন প্রেমের প্রস্তাব দিয়েছিলেন, সে কথা ভি’ডিওতে জানিয়েছেন তারই হবু কনে পূজা। ‘সে আমাকে প্রস্তাব দিয়েছিল বোনের সংবর্ধনায়। একদম ভোরবেলায়, ৪.১৪ নাগাদ। পাশে বসে লাজে ফেটে পড়া সৌম্য হাসিমুখে ভুলটা ধরিয়ে দেন, ‘ষোলো (৪টা ১৬)।’ পূজার জিজ্ঞাসু চোখে বিস্ময়, ‘তুমি তাহলে মনে রেখেছ!’ এরপর কৌতুকের সুরে বললেন, ‘আমি আসলে তোমাকে পরীক্ষা করছিলাম।’

ক্রিকেট নিয়ে শুরুতে খুব কম ধারণা ছিল পূজার। সৌম্যর সঙ্গে খেলা নিয়ে কথাও তেমন হত না। মাঠে ভাল খেলতে পারলে কিংবা কিছু অর্জন করতে পারলেই কেবল পূজাকে জানিয়েছেন সৌম্য। তথ্যপ্রযুক্তির এই যুগে চিঠির প্রয়োজন ফুরোলেও সৌম্য-পূজার কাছে কিন্তু তা নয়। ”মাঠে ভাল কিছু অর্জন করে এলে সে আমাকে বলে। চিঠি লেখার ব্যাপারটাও তখন থেকেই শুরু”, বলেন পূজা।

সৌম্যকে নিয়ে পূজা বলেন, ”এমনিতে সে মিষ্টি ছেলে। আমাদের ঝগড়া বেশিক্ষণ টেকে না। ঝগড়া হয়, ঠিক হয়ে যায়।” সৌম্য তাকে লিপস্টিক ও চকলেট কিনে দেন বলেও জানান পূজা। তার যে লিপস্টিক খুব পছন্দ, এটা জানিয়ে পূজা হাসতে হাসতেই বলেন, সামনাসামনি দেখায় সৌম্য আলাদা মানুষ। সে হ্যান্ডসাম এবং লম্বা। পূজার ভাষায়, ‘সে লম্বা, এটা আমার কাছে খুব গুরুত্বপূর্ণ।’