২৫ হাজার দিনমজুর পরিবারের দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিলেন সালমান খান

ফাইল ছবি

করোনা নিয়ে ক’ড়া সত’র্কতা জারি গোটা ভারত। হলিউড, বলিউড, টলিউডে বন্ধ সব শুটিং, বা’তিল সমস্ত কাজ। বিশ্বজুড়ে তারকারা আপাতত বিরতিতে রয়েছেন। সেল‌ফ কোয়ারেন্টাইনে। যদিও সালমান খান নিজের পানভেলের ফার্ম হাউসে ‘রাধে’ ছবির পোস্ট প্রোডাকশনের কাজে ব্যস্ত ছিলেন। পাশাপাশি গোটা পরিবারকেই নিজে গিয়েছেন সেই নিরা’পদ আস্তানায়। তবে এই ক’ঠিন অবস্থাতেও সালমানকে ভাবিয়ে তুলেছে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির দিনমজুরদের পরি’স্থিতি।

আর তাই এই লকডাউনে প্রায় ২৫ হাজার দিনমজুর পরিবারের দায়িত্ব একাই নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন বলিউডের ভাইজান। ২১ দিনের লকডাউনের জেরে অন্যান্য ক্ষেত্রের মতো বিনোদুনিয়াতেও যে বড়সড় আর্থিক ধ্ব’স নামতে চলেছে, তা আর আলাদা করে বলার অপেক্ষা রাখে না! সবচাইতে ক্ষ’তিগ্রস্থ হবেন জুনিয়র টেকনিশিয়ানরা। যারা কিনা সিনেমার সেটে দিনরাত খেটে পরিচালকের ভাবনাকে পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে সাহায্য করেন। আর তাই সেসমস্ত স্পটবয়, সেটের দিনমজুরদের সমস্যার কথা চিন্তা করে এগিয়ে এসেছেন সালমান খান।

ঠিক আমি, আপনি বা আমরা, এসময়ে নিজেদের খাদ্যসংস্থানের কথা ভাবছি, যে বাড়ির চাল-ডাল ফুরলে হঠাৎ কোথায় কী পাব! যদিও অত্যাবশকীয় দ্রব্য পাওয়া যাচ্ছে, কিন্তু এই লকডাউন পরিস্থিতিতে বাড়ির বাইরে পা রাখার সাহস খুব কেউ একটা করছেন না! রেস্তোরাঁ কিংবা ফুটপাতের খাবারের দোকানগুলোও বন্ধ। অতঃপর বাড়িতে মজুত রসদ ফুরোলে আর গতি নেই। কিন্তু ওরা, যাদের ‘দিন আনি দিন খাই’ পরি’স্থিতি তারা কিন্তু সবথেকে ক্ষ’তিগ্র’স্থ। কারও বাড়িতে চাল-ডাল নেই তো আবার কারও বা ফুরিয়েছে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস।

তাদের কথা মাথায় রেখে অর্থসাহায্য করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ভাইজান। এই অবশ্য প্রথম নয়! সালমান যে নানারকম সামাজিক কাজকর্মের সঙ্গে যুক্ত কিংবা ভিন্ন সময়ে ভিন্ন প্রেক্ষিতে একাধিকবার ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির অসহায়দের ত্রাতা হিসেবে ধ’রা দিয়েছেন, সেকথা সবাই জানেন। সালমানের ‘বিইং হিউম্যান’ সংস্থাও বহু দুস্থদের পড়াশোনা, ওষুধপাতির দায়িত্ব নিয়েছে। এবার করোনার জেরে আবারও তিনি প্রমাণ করে দিলেন যে কেন তিনি বলিউডের ‘ভাইজান’?

কারণ একাই ২৫ হাজার পরিবারের দায়িত্ব নেওয়া চারটিখানি কথা নয়। ইন্ডাস্ট্রির এক সদস্যের কথায়, ”ভাইজানকে যে সবরকম আ’পদে-বি’পদে পেয়েছি আমরা, সেকথা সবারই জানা। আলাদা করে আর কী বলব?” অভিনব উদ্যোগ তো বটেই!