এক ঘণ্টায়ও মিলল না অক্সিজেন, শ্বাসক’ষ্টে অন্তঃস’ত্ত্বার মৃ’ত্যু

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রিপা দাস (৩২) নামে এক অন্তঃস’ত্ত্বা শিক্ষিকা অক্সিজেনের অভাবে মা’রা গেছেন বলে অভিযোগ করেছেন মৃ’তের স্বজনেরা। সোমবার (৩০ মার্চ) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। তিনি রাজবাড়ি জেলার পাংশা উপজেলার রামকল গ্রামের মিঠুন সরকারের (৩৮) স্ত্রী। রিপা রামকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা ছিলেন। তার স্বামীর নাম মিঠুন সরকার। রিপা দাস ফরিদপুরের টেপাখোলা নিবাসী অনিল কুমার দাসের মেয়ে। চার বছরের বিবাহিত জীবনে এই প্রথম সন্তান সম্ভবা হয়েছিলেন তিনি।

নিহ’ত রিপার ভগ্নিপতি ধীরাজ কুমার (৪০) জানান, রিপা আড়াই মাসের গ’র্ভবতী ছিলেন। কিন্তু এরইমাঝে তার র’ক্তক্ষরণ হওয়ায় রোববার (২৯ মার্চ) দুপুর ২টার দিকে তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসকরা তাকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে এমআর (গ’র্ভপাত) করাতে বলেন।

ধীরাজ জানান, এরপর রোববার সন্ধ্যা ৭টার দিকে রিপাকে অপারেশন থিয়েটারে নেয়া হয়। ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গাইনি বিশেষজ্ঞ কানিজ ফাতেমা তার এমআর করান। সকাল ৭টার দিকে সেখান থেকে তাকে বের করে বেডে দেয়া হয়। এসময় রিপার প্রচণ্ড শ্বাসক’ষ্ট হচ্ছিল। দীর্ঘক্ষণ হাসপাতালের নার্স ও ইন্টার্নদের কাছে অনুরোধ করেও তারা অক্সিজেন দেয়ার ব্যবস্থা করতে পারেননি। প্রায় এক ঘণ্টা পর একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার আনা হলেও তার আগেই মৃ’ত্যুবরণ করেন তিনি। দুপুরে তার মৃ’তদের নিয়ে যাওয়া হয় রামকল গ্রামে।

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক সাইফুর রহমান সংবাদিকদের বলেন, গতকাল সকালে গাইনি বিশেষজ্ঞ কানিজ ফাতেমা আমাকে বিষয়টি জানিয়েছে। তিনি (কানিজ) জানান অ’স্ত্রপচারের পর রোগীর অবস্থা ভালো ছিল। তবে সকালে হঠাৎ তার অবস্থার অবনতি ঘটায় তিনি মা’রা গেছেন। তিনি বলেন, অক্সিজেনের অভাবে ওই রোগীর মৃ’ত্যু হয়েছে বলে আমার জানা নেই। তবে এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে।

সূত্র: সময় নিউজ।