সবাইকে ঘরে থাকার জন্য বিশেষ আহ্বান জানালেন বাংলাদেশের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক আকবর আলী

গত ফেব্রুয়ারীতে দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিত যুব ক্রিকেট বিশ্বকাপে ভারতকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশেকে কোন বিশ্বকাপের ট্রফি এনে দেন রংপুরের ছেলে আকবর আলী। ফাইনালে বাংলাদেশকে জয়ের অন্যতম কারিগর ছিলেন তিনি। এছাড়া পুরো টুর্নামেন্টে অসাধারণ অধিনায়কত্বের সুনামও কুড়িয়েছেন এই রংপুরের ছেলে।

বিশ্বকাপ জয়ের পর আকবর আলীর টার্গেট ছিল ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ। কিন্তু প্রাণঘা’তী কারনা ভাই’রাসের কারণে এখন আপাতত খেলা বন্ধ রয়েছে বাংলাদেশে। তাই এই মুহূর্তে ঘরেই সময় কাটাচ্ছেন তিনি। বাংলা ট্রিবিউন কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে আকবর আলী বলেন,” ‘বিশ্বকাপ খেলে আসার পর প্রিমিয়ার লিগ নিয়ে আমরা সবাই খুব রোমাঞ্চিত ছিলাম। কিন্তু সব কিছুই নষ্ট করে দিলো করোনাভাইরাস। এখন খেলার চেয়ে মহামারি এই ভাই’রাস থেকে বাঁচার চেষ্টা করতে হবে আগে। জানি না কবে আবার ক্রিকেট মাঠে ফিরতে পারবো। কবে সবকিছু আবার ঠিক হয়ে যাবে।’

তবে বিসিবির দেওয়া ১০ টি নির্দেশনা মেনে চলছেন তিনি। তবে এইসব তিনি আগে থেকেই মেনে চলছেন। বিসিবির ওই নির্দেশনা দেওয়ার আগেই যুব দলের কোচ এই নির্দেশনা আকবর আলীকে দিয়েছিলেন অনেক আগেই। সাক্ষাৎকারে তিনি আরো বলেন, ‘বিসিবির নির্দেশনা পাওয়ার আগেও আমাদের কোচরা আমাদের এ বিষয়ে নির্দেশনা দিয়েছেন। কীভাবে নিজেদের ফিট রাখা যাবে। কীভাবে মানসিকভাবে সুস্থ থাকা যাবে। এগুলোর ব্যাপারে ব্যাখ্যা দিয়েছেন। সেভাবে আমি কাজ করছি। আশা করি, যখন খেলা শুরু হবে ফিটনেস নিয়ে কোন সমস্যা থাকবে না।’

অবশ্য ঘরে গৃহবন্দি থাকলেও তা যে জীবন রক্ষাকারী, সেটি নিজেও মানেন আকবর। তাই সবাইকে ঘরে থাকতে অনুরোধ করেছেন তিনি, ‘বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শ আমাদের মেনে চলতে হবে, ধৈর্য্য ধরতে হবে। সতর্ক হতে হবে সবাইকে। রংপুরে আমাদের এখানে অনেকেই সতর্ক নন। দিনে ঘরে থাকলেও, রাতে তারা বাইরে চায়ের দোকানে আড্ডা দিচ্ছেন। আগামী কয়েকটা দিন এগুলো বাদ দিতে হবে। তাহলেই হয়তো আমাদের দেশ করোনাভাই’রাসের হাত থেকে মুক্তি পাবে।’