ইমাম-মুয়াজ্জিনদের ঈদ উপহার দেবেন প্রধানমন্ত্রী

দেশের সকল মসজিদের ইমাম-মোয়াজ্জেমদের জন্য ঈদের আগে ‘ঈদ উপহার’ পাঠানোর সুখবর দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল বৃহস্পতিবার (১৪ মে) প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে করোনাভাইরাসে কর্মহীন হয়ে পড়াদের মোবাইল ব্যাংকিং সেবার মাধ্যমে সরাসরি নগদ অর্থ প্রেরণ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এ সুখবরের কথা জানান প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের সব মসজিদে ঈদের আগে উপহার হিসেবে আর্থিক সহায়তা পাঠানো হবে। পাশাপাশি আরও সাত হাজার কওমি মাদ্রাসায় নতুন করে আবারো ঈদের আগে আর্থিক সহায়তা দেয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সারা দেশে বিভিন্ন মসজিদে ইমাম-মোয়াজ্জেমসহ অন্যান্যরা আছেন। সাধারণত রমজান মাসে সবাই মসজিদে বেশি যায়। তারাবির নামাজ পড়েন, অনেকে দান করেন। এতে মসজিদের ভালো ইনকাম হয়। আমি খোঁজ নিচ্ছি, এখনও অনেক মসজিদ কমিটি ও বিত্তশালীরা দান করে যাচ্ছেন-এ খবর আমি জানি। তারপরও সরকারের একটা দায়িত্ব আছে। আমি ইতোমধ্যে একটি তালিকা করতে বলে দিয়েছি। সব মসজিদে রমজান-ঈদ উপলক্ষে আর্থিক সহায়তা দেব।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য দেশের প্রতিটি এলাকার সব জায়গায় কষ্ট দূর করা। আমি সেটাই চাই। আমাদের এত মানুষ আমরা হয়তো বেশি দিতে পারবো না। কিন্তু কিঞ্চিত পরিমাণ দিতে পারি। কেউ যেন বঞ্চিত না হয় সে চিন্তা করেই আমরা এ পদক্ষেপগুলো নিচ্ছি।’ আরও সাত হাজার কওমি মাদ্রাসায় ঈদের আগে আর্থিক সহায়তা দেয়া হবে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের অনেক মাদ্রাসা আছে যেখানে এতিমখানা রয়েছে। যাদের কোথাও যাওয়ার জায়গা নেই। তারা খুব কষ্টের মধ্যে ছিল। তাদের কথা চিন্ত করে আর্থিক সহায়তা দিয়েছি। দ্বিতীয় পর্যায় আরও সাত হাজার কওমি মাদ্রাসায় ঈদের আগে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে-এ পদক্ষেপ নিয়েছি।’

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী জানান, করোনা পরিস্থিতিতে সামাজিক সুরক্ষা বেষ্টনীর আওতা বাড়ানোর মাধ্যমে আরও বেশি মানুষের কাছে সরকার সহায়তা পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করছে। তারই অংশ হিসেবে আজ ৫০ লাখ পরিবারের কাছে নগদ অর্থ সহায়তা পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। এর আগে দেশের ৬ হাজার ৯৫৯টি কওমি মাদরাসাকে ৮ কোটি ৩১ লাখ ২৫ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় দেশের সব মসজিদের ইমাম-মুয়াজ্জিনের জন্যও সহায়তার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।-একুশে টেলিভিশন