আমাদের এখন আল্লাহর দেখানো পথে চলা উচিত : আফ্রিদি

ভয়ংকর করোনাকে ঠেকাতে মাঠে নেমেছে সাবেক পাকিস্তানি ক্রিকেটার শহিদ আফ্রিদি। বর্তমান পরিস্থিতিতে নিজ দেশের অসহায় মানুষদের সাহায্যে কাজ করছেন তিনি। এ পর্যন্ত ২ হাজার অসহায় পরিবারের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন আফ্রিদি। বিশ্বজুড়ে ভয়ংকর রূপ ধারণ করেছে মহামারি করোনা। এ ভাইরাসের কারণে বিশ্ব যেন মৃত্যুপুরীতে রূপ নিয়েছে। পাকিস্তানেও দিন দিন ভংয়কর হয়ে উঠছে এ ভাইরাস। আফ্রিদিকে প্রায়ই অসহায় ও দুস্থদের পাশে দাঁড়াতে দেখা যায়।

এমনকি মানবিক কাজ করতে তিনি খুলেছেন ‘আফ্রিদি ফাউন্ডেশন’। এবার তার এ ফাউন্ডেশন এগিয়ে এলো নিজ দেশের চরম বিপর্যয়ে। আগেই করোনা মোকাবিলায় কাজ করার ঘোষণা দিয়েছিল আফ্রিদি ফাউন্ডেশন। এবার জানা গেল, সাধারণ মানুষের মধ্যে জনসচেতনতা সৃষ্টি ছাড়াও উদ্ভূত পরিস্থিতি মোকাবিলায় এ পর্যন্ত দুই হাজার অসহায় ও দারিদ্র্য পরিবারে অতীব জরুরি জিনিসপত্র ও খাদ্যসামগ্রী সরবরাহ করছে আফ্রিদি ফাউন্ডেশন।

সম্প্রতি নিজের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে এক ভি’ডিও বার্তায় আফ্রিদি পুরো বিশ্বের মানুষদের সাবধানে থাকার পরামর্শ দেন। এছাড়া নিজে অসহায় মানুষের পাশে থাকার সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন বলেও জানান তিনি।

ভি’ডিও বার্তায় আফ্রিদি সবাইকে সচেতন হতে বলেন। তিনি বলেন, ‘করোনার ভয়াবহতা এবং বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে আপনারা সবাই জানেন। পুরো বিশ্বের পাশাপাশি পাকিস্তানেও করোনার প্রভাব পড়েছে। এই সময়ে আমাদের সকলের দায়িত্ব একে অপরকে সাহায্য করা। এ সময় সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো নিজের খেয়াল রাখা। হাত ধোয়া, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকা, হাঁচি-কাশি দেওয়ার সময় টিস্যু পেপার ব্যবহার করা। সবাইকে এ সময় সাবধানে থাকা উচিত।’

সাবেক এ ক্রিকেটার আরও বলেন, ‘এ সময় আমাদের আল্লাহর দেখানো পথে চলা উচিত। সামনে রমজান মাস আসছে। এখন আবার করোনার প্রভাবে দেশের পরিস্থিতি ভালো না। সমাজের বিত্তবান লোকেরা বেশি বেশি জিনিসপত্র কিনে নিজেদের দখলে রেখেছে। ফলে গরিব মানুষরা কিছুই পাচ্ছে না। দোকানে গেলে হ্যান্ড স্যানিটাইজার পাওয়া যাচ্ছে না। মাস্ক পাওয়া যাচ্ছে না কারণ বিত্তবানরা সবাই সব কিছু নিজেদের দখলে রেখেছে। বাজারে পাওয়া গেলেও তার দাম এত বেশি যে গরিবরা তা কিনতে পারছে না।’

এছাড়া গ্রামের মানুষদের সাহায্য করতে যাওয়ার কথাও জানান আফ্রিদি। তিনি বলেন, ‘আমি আফ্রিদি ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে এখানে একটি গ্রামে এমন মানুষদের সাহায্য করতে এসেছি করোনার কারণে যাদের আয় বন্ধ হয়ে গেছে। সৃষ্টিকর্তা আমাকে অনেক দিয়েছেন যার কারণে চেষ্টা করছি অসহায় মানুষদের সাহায্য করতে। যাতে করে কাল আল্লাহ আমাকে প্রশ্ন না করে বসে আমি তোমাকে অনেক দিয়েছি, তুমি অসহায়দের জন্য কী করেছ?