দুই পরগনা ধ্বংস হয়ে গেছে: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

বাড়িঘর, নদী বাঁধ ভেঙে ও ক্ষেত ভেসে গিয়ে পশ্চিমবঙ্গের উত্তর-দক্ষিণ ২৪ পরগনা ধ্বংস হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দুই ২৪ পরগনার বাড়িঘর, নদী বাঁধ ভেঙে গেছে। ভেসে গিয়েছে সব ধরণের ক্ষেত। অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘আম্ফান’র তাণ্ডবে রাজ্যে এখনো ১০ থেকে ১২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন মূখ্যমন্ত্রী মমতা।

বুধবার রাত ৯টায় নবান্নে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এসব মন্তব্য ও তথ্য জানান মুখ্যমন্ত্রী। বক্তব্যের সময় তিনি বারবার ‘রাজ্যের সর্বনাশ হয়ে গেল’ বলে উচ্চারণ করছিলেন।সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় সুন্দরবনে আছড়ে পড়ার পর দক্ষিণে তাণ্ডব চালিয়ে উত্তর ২৪ পরগনায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে প্রবল ঘূর্ণিঝড়টি। সারাদিনই নবান্নের কন্ট্রোল রুম থেকে ঝড়ের গতিপ্রকৃতির খোঁজ নিচ্ছেন মমতা।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বলেন, পাথরপ্রতিমা, নামখানা, বাসন্তী, কুলতলি, বারুইপুর, সোনারপুর, ভাঙড় থেকে আসা খবরগুলো ভয়াবহ। উত্তর ২৪ পরগনা থেকেও খারাপ খবর আসছে।তিনি আরো বলেন, দক্ষিণবঙ্গের প্রায় ৯৯ শতাংশ শেষ হয়ে গেছে। বিদ্যুৎ নেই, পানি নেই, পুকুর, চাষের জমি সব শেষ। এ ডিজাস্টারে আমরা শকড। আমরা খুবই স্তম্ভিত, খুব খারাপ লাগছে।

মূখ্যমন্ত্রী আরো বলেন, ক্ষতির পরিমাণ এখনি বলা যাচ্ছে না। গোটা ধ্বংসের চিত্র বুঝতে ১০ থেকে ১২ দিন লাগবে। একদিনে ক্ষতির হিসাবের কোনো কিনারা পাওয়া যাবে না।কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে মমতা বলেন, ডিজাস্টারটি পলিটিক্যালি না দেখে মানবিকভাবে দেখুন। ধ্বংসের হাত থেকে উন্নয়নের পথে আবারো সবাই একসঙ্গে শামিল হয়ে কাজ করতে চাই।