আম্ফানের তা’ণ্ডবে পানির তলায় কলকাতা বিমানবন্দর

অতি প্রব’ল ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের ছো’বলে বিধ্ব’স্ত গোটা কলকাতাসহ পশ্চিমবঙ্গের বিস্তীর্ণ অঞ্চল। ল’ন্ডভ’ন্ড কলকাতা বিমানবন্দরও। বুধবার বিকাল থেকে টানা কয়েক ঘণ্টার অতিবৃষ্টির জেরে পানির তলায় বিমানবন্দরের রানওয়ে এবং হ্যাঙার। প্রব’ল ঝড়ের দা’পটে ভেঙে গিয়েছে টার্মিনালের বহু কাচ।

বৃহস্পতিবার সকালে দেখা যায়, আম্ফানের জেরে অতিবৃষ্টির ফলে জলে আধডোবা কলকাতা বিমানবন্দরের হ্যাঙারে থাকা বিমানগুলি। ক্ষ’তিগ্র’স্ত বিমানবন্দরের একাংশের ছাদও। বিমানবন্দরের এক শীর্ষকর্তা জানিয়েছেন, দু’টি হ্যাঙারের সবচেয়ে বেশি ক্ষ’তি হয়েছে। তবে ওগুলি ব্যবহার করা হত না বলে জানিয়েছেন তিনি।

আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, আম্ফানের দা’পটে গতকাল সন্ধ্যা ৬টা ৫৫ মিনিটে কলকাতা বিমানবন্দর এলাকায় প্রতি ঘণ্টায় ১৩৩ কিলোমিটার গতিবেগে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে গিয়েছে। সেই সঙ্গে টানা কয়েক ঘণ্টা ধরে চলে প্রব’ল বৃষ্টি। তার জেরেই বিমানবন্দরে জল জমে যায়। ক্ষ’তি’গ্রস্ত হয় হ্যাঙারও। সেখানে থাকা সব বিমানের অনেকাংশই জলের তলায় ডুবে যায়। দু’টি হ্যাঙারে এতটাই ক্ষতি হয়েছ যে তা আর মেরামত করা যাবে না বলে বিমানবন্দর সূত্রে খবর।

আম্ফানের জন্য সত’র্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে গত কাল থেকে আজ, বৃহস্পতিবার ভোর ৫টা পর্যন্ত কলকাতা বিমানবন্দর থেকে সমস্ত উড়ান বন্ধ রাখা হয়েছিল। এদিন সকাল হতেই দেখা যায়, বিমানবন্দরের রানওয়েতে জল থইথই করছে। ফলে রানওয়ে এবং হ্যাঙারের জমা জল না সরলে আপাতত ব্যাহত হবে বিমান পরিষেবা। তবে আম্ফানের জেরে কতটা ক্ষ’য়ক্ষ’তি হয়েছে, তা পরিমাপ করা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের পক্ষে এখনও সম্ভব হয়নি। সূত্র : আনন্দবাজার