মোসাদ্দেকের সহযোগিতা পেয়েছেন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ

করোনায় সৃষ্ট পরিস্থিতিতে অসহায় ও অসচ্ছলদের সহযোগিতায় ক্রিকেটারদের এগিয়ে আসার কথা কম বেশি আমরা সবাই জানি। মাশরাফি, সাকিব, তামিম, মুশফিক, রুবেল, তাসকিন, সৌম্য, নাজমুল ইসলাম অপু; সবাই স্ব স্ব অবস্থান থেকে বাড়িয়ে দিয়েছেন সহযোগিতার হাত। লাল সবুজের দুর্বার এই যোদ্ধারা কখনো দিয়েছেন খাদ্য সহায়তা কখনো বা নগদ অর্থ। কিন্তু মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের কথা বোধ হয় আমরা অনেকেই জানি না।

দেশের ক্রান্তিকালে হাত গুটিয়ে বসে থাকেননি ব্যাটিং অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতও, মাশরাফি-সাকিবদের মতো এগিয়ে এসেছেন তিনিও। করোনা এদেশে সংক্রমন ছড়ানোর শুরু থেকে আজ অব্দি নিজ জেলা ময়মনসিংহের প্রায় ৪শ ৭০ জন দুঃস্থ মানুষের মাঝে বিতরণ করছেন খাদ্য সামগ্রী ও অর্থ। এর মধ্যে আছেন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষও। সংখ্যাটিও নেহায়াৎ কম নয়, ১শ ২০ জন।

এখানেই শেষ নয়। ২৪ বছর বয়সী এই তরুণ ক্রিকেটার ঈদ উপলক্ষ্যে ময়মনসিংহের ১শ পরিবারের মধ্যে বিতরণ করেছেন খাদ্য সামগ্রী। এর মধ্যে আছে; দুধ, সেমাই, চিনি, চালসহ আরো নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি। বলে রাখা ভালো তার সাহায্য শুধুই ময়মনসিংহের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। দেশের অপর চার জেলা; জামালপুর, রাজবাড়ী, গোপালগঞ্জ ও চট্টগ্রামের সহায়সম্বলহীন মানুষও এর আওতায় এসেছেন। বৃহস্পতিবার (২১ মে) সন্ধ্যায় মোসাদ্দেক নিজেই সারাবাংলাকে এখবর দিয়েছেন।

তিনি জানালেন, ‘সত্যি কথা বলতে মানবতার কথা ভেবেই এই সাহায্য দেওয়া। আমার পক্ষে যতটুকু সম্ভব দিয়েছি। প্রথমে প্রায় ২শ পরিবার, এরপর তৃতীয় লিঙ্গের ১২০ জন ও তারপরে ১৫০ জনকে খাদ্য সহযোগিতাসহ যা যা লাগে দিয়েছি। আর ঈদ উপলক্ষ্যে ১০০ মানুষের জন্য দুধ, সেমাই, চিনি, চাল মানে যা যা লাগে সবই দিয়েছি। এছাড়াও অন্যান্য ফাউন্ডেশনেও দিয়েছি। যা করেছি সব আমার উদ্যোগে। জামালপুরে একটা ফাউন্ডেশন, রাজবাড়ী, গোপালগঞ্জ ও চট্টগ্রামের একটা ফাউন্ডেশনেও আমার তরফ থেকে সহযোগিতা দেওয়া হয়েছে।’-সারাবাংলা