জেনে নিন কাঁঠালের পুষ্টিগুন ও স্বাস্থ্য উপকারিতা

এই সময় বাজারে কাঁঠাল খুব সহজেই পাওয়া যায়। যা পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ। এতে রয়েছে ফাইবার, প্রোটিন, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, পটাসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ম্যাংগানিজ, কপার, ভিটামিন এ, ভিটামিন সি, কার্বসহ আরও অনেক পুষ্টিগুণ। যা আমাদের স্বা’স্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। করো’না কালে সবারই কাঁঠাল খাওয়া খুব জ’রুরি। এতে দে’হের রো’গ প্র’তিরো’ধ ক্ষ’মতা শ’ক্তিশালী হবে। চলুন জে’নে নেয়া যাক এই সময় কাঁঠাল খাওয়ার উপকারিতা স’স্পর্কে-

> কাঁঠালে রয়েছে কার্বোহাইড্রেট ও ক্যালোরি। ফলে এটি খেলে তাৎক্ষণিক শ’ক্তি পাওয়া যায়। ভিটামিন এ এবং ভিটামিন পাওয়া যায় কাঁঠাল থেকে। এই দুই ভিটামিন রো’গ প্র’তিরো’ধ ক্ষ’মতা বাড়িয়ে সু’স্থ রাখে শ’রীর। কোলেস্টেরল না থাকায় কাঁঠাল শ’রীরের জন্য নি’রাপদ। কোষের দ্রুত ক্ষয় হয়ে যাওয়া রো’ধ করে কাঁঠাল।

> দৃষ্টিশ’ক্তি ভালো রাখতে সাহায্য করে এই ফল। প্রচুর পরিমাণে আঁশ রয়েছে এই ফলে। তাই এটি হজ’মের গণ্ডগোল দূ’র ক’রতে সক্ষম। কাঁঠালে থাকা প্রোটিন ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ব্লাড সুগার নি’য়ন্ত্রণে সাহায্য করে। ত্বক সুন্দর রাখতে নিয়মিত খান কাঁঠাল। এতে থাকা ভিটামিন সি ত্বকের অকালে বুড়িয়ে যাওয়া রো’ধ করে।

> কাঁঠালে থাকা পটাসিয়াম, ফাইবার ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট হৃদরো’গের ঝুঁ’কি কমায়। কাঁঠালে থাকা ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেসিয়াম হাড় মজবুত রাখে এবং অস্টিওপোরসিস রো’গ প্র’তিরো’ধ করে। অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও ফ্ল্যাভোনয়েড থাকায় কাঁঠাল ক্যা’ন্সার প্র’তিরো’ধ ক’রতে পারে। এতে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট শ’রীরে ফ্রি রেডিক্যাল প্র’তিরো’ধ করে, যা ক্যা’ন্সার সৃষ্টির জন্য দায়ী।