পানির নিচ থেকে অনেক ঘন্টা পর বেঁচে ফেরার ঘটনা নতুন নয়

দেশে পানির নিচ থেকে অনেক ঘন্টা পর বেঁচে ফেরার ঘটনা এই প্রথম নয়। ২০১৭ সালেও ঘটেছিল এমন আরেকটি ঘটনা। সে সময় নদীর নিচ থেকে ২৮ ঘন্টা পর সোহাগ হাওলাদার নামের একজন জীবিত উ’দ্ধার হন। নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীতে ডুবে যাওয়া বালুবাহী বাল্কহেডের ভেতর থেকে তিনি বেঁচে ফিরেন। তিনি ছিলেন ওই বালুবাহী জাহাজের ইঞ্জিন সহকারী। বাল্কহেডের ইঞ্জিন রুমে পানি প্রবেশ না করায় এবং রুমে অক্সিজেন থাকায় তিনি বেঁচে গিয়েছিলেন।

সোমবার বুড়িগঙ্গা নদীতে ডুবে যাওয়া লঞ্চের ভেতর থেকে ১৩ ঘণ্টা পর একজন জীবিত উ’দ্ধার হয়েছেন। তাঁর নাম সুমন ব্যাপারী। পেশায় তিনি ফল ব্যবসায়ী। তিনি মুন্সিগঞ্জ জেলার টঙ্গীবাড়ী উপজেলার আব্দুল্লাহপুরের বাসিন্দা। সোমবার রাত ১০টার দিকে ডুবুরিরা টিউবের মাধ্যমে লঞ্চটি ওপরে তোলার চেষ্টা করছিলেন। তখন লঞ্চটির একাংশ ওপরে উঠে আসে। ঠিক তখনই ওই ব্যক্তি তলিয়ে যাওয়া লঞ্চ থেকে বেরিয়ে আসেন।

ডুবুরিরা তাৎক্ষণিকভাবে তাকে লাইফ জ্যাকেটে ঢেকে এবং ম্যাসাজ করে শরীরের তাপমাত্রা স্বাভাবিক করার চেষ্টা করেন। এরপর সুমন চোখ মেলে তাকান। অলৌকিকভাবে তাঁর বেঁচে থাকার ঘটনা নিয়ে চলছে সমালোচনা! অনেকের যুক্তির ধরন দেখে মনে হয়, বেঁচে থেকে ভদ্রলোক মনে হয় মস্ত একটা অপ’রাধ করে ফেলেছেন!

বিদেশেও পানির নিচ থেকে অনেক ঘন্টা পর বেঁচে ফেরার এমন ঘটনা রয়েছে। বিবিসির এক সংবাদ থেকে জানা যায়, কোন জাহাজ কিংবা লঞ্চ যদি পানিতে উল্টো হয়ে ডুবে তখন এয়ার পকেট তৈরি হয়। তখন পানির তাপমাত্রার উপর নির্ভর করে একজন মানুষ ২৫ ঘন্টার বেশি বেঁচে থাকতে পারেন।