করোনার লক্ষণ নিয়েই বিয়ে, পরের দিনই মৃ’ত্যু বরের

ফাইল ছবি

বিয়ের বেশ কিছু দিন আগে থেকেই হবু বরের শরীরে করোনাভাই’রাসের সংক্র’মণের লক্ষণ দেখা যাচ্ছিল। তবে তিনি তা উপেক্ষা করে বিয়ে করতে যান। সব আনুষ্ঠানিকতা ঠিক মতো হলেও বিয়ের পর দিনই মারা যান বিহারের ওই তরুণ। সদ্য বিবাহিত তরুণ মা’রা তো গেলেনই, সেই সঙ্গে বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া মানুষজনের শরীরেও ছড়িয়ে দিয়ে গেলেন এই মার’ণ রো’গ।

এখনও পর্যন্ত এই বিয়ের অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া ৩৬৯ জনের শরীর থেকে নমুনা নিয়ে করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে ৮৯ জনের পরীক্ষার ফল পজিটিভ এসেছে এবং ৩১ জন আগে থেকেই করোনা পজিটিভ ছিলেন বলে জানা গেছে। পাটনার পালিগঞ্জে হওয়া এই বিয়ের অনুষ্ঠান থেকেই করোনাভাই’রাসের গোষ্ঠী সংক্র’মণ ঘটেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

দেশটির জেলা প্রশাসনের দেওয়া তথ্য অনুসারে, ১৫ জুন ওই বিয়ের অনুষ্ঠান হয় এবং তার পরদিন অর্থাৎ ১৬ জুন বর মারা যায়। জানা যায়, করোনায় আ’ক্রান্ত হয়েই মৃ’ত্যু হয়েছে তার। যারা বিয়েতে অংশ নিয়েছিলেন তাদের শরীরেও করোনার লক্ষণ দেখা দেওয়ায় তাদেরও টেস্ট করা হয় এবং মোট ১১১ জন নতুন করে সংক্র’মিত হিসাবে ধরা পড়েন।

জানা গেছে, মৃ’ত ওই যুবক বিয়ের আগে গাড়িতে করে বিহার থেকে কিছুদিনের জন্য দিল্লি এসেছিলেন। তারপর বিহারে পৌঁছে তিনি কিছুদিন কোয়ারেন্টিনেও ছিলেন। তখন যুবকের মধ্যে সেভাবে কোনও লক্ষণই দেখা যায়নি। কিন্তু বিয়ের ঠিক আগে আগেই তার শরীরে করোনার কিছু লক্ষণ দেখা দিতে শুরু করে, যদিও তিনি সেটা উপেক্ষা করেন। ফলে বিয়ের পরের দিনই তিনি মা’রা যান।

সেই সঙ্গে বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া স্থানীয় দোকানদার, সবজি বিক্রেতা এবং মিষ্টান্ন প্রস্তুতকারকরাও তার থেকে সংক্র’মিত হন এবং করোনা পজিটিভ হিসাবে ধরা পড়েন।

সূত্র: এনডিটিভি