দীর্ঘদিনের অপেক্ষার প্রহর শেষ হচ্ছে বাংলাদেশ দলের

অবশেষে দীর্ঘ অপেক্ষার প্রহর শেষ হচ্ছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের। দীর্ঘ বিরতির পর অবশেষে মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুশীলনের সুযোগ পাচ্ছে ক্রিকেটাররা। করোনাভাইরাসের কারণে ১৬ মার্চের পর বন্ধ হয়ে গিয়েছে বাংলাদেশের সকল ধরনের ক্রিকেট ম্যাচ। চার মাস পেরিয়ে যাওয়ার পর অবশেষে ক্রিকেটারদের মাঠে ফেরাতে চায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। এর আগেও কয়েকবার মিরপুরে অনুশীলনের জন্য আবেদন করেছিল জাতীয় দলের সিনিয়র ক্রিকেটাররা।

কিন্তু পরিস্থিতি বিবেচনা করে সে সময় অনুমতি দেয়নি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।অবশেষে অনুমতি পাচ্ছে ক্রিকেটাররা। তবে অনুশীলনের সুযোগ সবাই পাচ্ছে না। নির্বাচকদের বিবেচনায় থাকা পুলের খেলোয়াড়দের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছে বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগ। মিরপুরে ফিটনেস অনুশীলন করতে আগ্রহীদের তালিকাও তৈরি করা হচ্ছে। ফিটনেস অনুশীলনের জন্য জিমনেসিয়াম ছাড়াও প্রয়োজনীয় সবকিছুই ব্যবহার করতে পারবেন ক্রিকেটাররা। রানিং করা যাবে বিসিবির একাডেমি মাঠ ও শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে। তবে পুরোদমে অনুশীলন শুরু করতে আরো কিছুদিন সময় লাগবে।

আগস্টের মাঝামাঝি সময়ে ব্যাট-বল নিয়ে অনুশীলনে নেমে যেতে পারে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। তার কারণ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পরিবর্তে শ্রীলংকার বিপক্ষে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে যেতে পারে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। শুধু তাই নয় এর আগে শ্রীলঙ্কায় যাবে বাংলাদেশ এইচপি দল। সেপ্টেম্বরে শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়ার কথা রয়েছে বাংলাদেশ এইচপি দলের। বাংলাদেশ এইচপি দলের শ্রীলঙ্কা সফর আগেই চূড়ান্ত ছিল।

সূচি অনুযায়ী দলটিকে দ্বীপরাষ্ট্রে পাঠাতে চায় দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা। এজন্য দুই বোর্ডের মধ্যে আলোচনাও চলছে। সফর চূড়ান্ত হলে বাংলাদেশের দলটি যাবে হাম্বানটোটায়। সেখানে আইসোলেশন শেষে ট্রেনিং শুরু করবে দল। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বলেছেন,‘এইচপি দলকে শ্রীলঙ্কা পাঠানোর আলোচনা হচ্ছে। শ্রীলঙ্কা রাজি হলে আমরা দল পাঠাতে পারবো। আমরা সেভাবেই স্কোয়াড তৈরি করেছি। দুই বোর্ডের মধ্যে আলোচনা হচ্ছে। সামনে নিশ্চয়ই কোনো আলোচনা হবে।’

শুধু এইচপি নয়, জাতীয় দলের স্থগিত হওয়া সফর নিয়েও দুই বোর্ডের আলোচনা হচ্ছে। অক্টোবর-নভেম্বরের ফাঁকা সূচিতে তিন টেস্ট খেলার ব্যাপারে কথা বলছে দুই বোর্ড। গত বছরের আগস্টে শ্রীলঙ্কা ইমার্জিং দল (এইচপি) বাংলাদেশ সফরে এসেছিল। তিনটি ওয়ানডে এবং দুইটি চারদিনের ম্যাচ খেলেছিল দুই দল। সেবার বাংলাদেশ এইচপি দলে খেলেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত, সাইফ হাসান ও নাঈম শেখরা।