বোরকা পরে নৌকায় পালিয়ে যাবার চেষ্টা করেছিল শাহেদ

বাংলাদেশের র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন বা র‍্যাব জানিয়েছে, ভারতে পালিয়ে যাবার আগ মুহূর্তে রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. শাহেদকে আ’টক করা হয়েছে। র‍্যাব-এর কর্মকর্তা সাতক্ষীরায় সাংবাদিকদের বলেন, গ্রে’ফতার এড়াতে মো. শাহেদ ছদ্মবেশ ধারণ করে। তিনি বলেন, “বোরকা পরে একটি নৌকায় উঠার চেষ্টা করছিলেন মো. শাহেদ। তখনই তাকে আট’ক করা হয়।” র‍্যাব কর্মকর্তা জানান, “নৌকায় ওঠার আগেই আমরা ধরে ফেলেছি, মূলত পাড়ে। আমরা তাকে অনুসরণ করছি বিভিন্ন জায়গায়। সে ঘনঘন তার অবস্থান পরিবর্তন করছিল।”

“সে তার চুলের রং চেঞ্জ করেছে, গোঁফ কেটে ফেলেছে। তার চুল সাধারণত সাদা থাকে, সে কালো করে ফেলেছে। তার প্ল্যান ছিল মাথা ন্যা’ড়া করার। সে ইন্ডিয়াতে গেলে হয়তো করতো।” র‍্যাব কর্মকর্তা জানান, নৌকার যে মাঝি মো. শাহেদকে নদী পার হতে সহযোগিতা করছিল, সে পালিয়ে গেছে। “সে মাঝি আসলে খুব ভালো সাঁতার জানে। উপস্থিতি টের পেয়ে সে সাঁতরিয়ে চলে গেছে। সে (শাহেদ) মোটা মানুষ সেজন্য হয়তো সে পালাতে পারে নাই। সেজন্যই সে (শাহেদ) ধরা পড়েছে। “

টেস্ট না করেই করোনাভাই’রাস পরীক্ষার ভু’য়া রিপোর্ট দেয়াসহ নানা অভিযোগে গত ৭ই জুলাই সিলগালা করে দেয়া হয়েছে ঢাকার উত্তরায় রিজেন্ট হাসপাতাল ও রিজেন্ট গ্রুপের প্রধান কার্যালয়। তখন থেকেই প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মো. শাহেদ পলাতক ছিলেন। তখন থেকেই র‍্যাব বলে আসছিল যে মো. শাহেদ যাতে সীমান্ত দিয়ে পালিয়ে ভারত যেতে না পারে সেজন্য আই’নশৃঙ্খলা বাহিনী সতর্ক অবস্থায় রয়েছে।

রিজেন্ট হাসপাতাল ও গ্রুপের মালিক ও এমডি সহ ১৭ জনের বিরু’দ্ধে মাম’লা হয়েছে। প্রতা’রণার মাম’লায় এর আগে আরো ১০ জনকে আ’টক করা হয়েছে।

সূত্র: বিবিসি বাংলা