মোসাদ্দেকের ব্যাটেই বাংলাদেশ প্রথম আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের ফাইনাল জিতেছিল

মাত্র ৩৫ ওয়ানডে খেলেছেন জাতীয় দলের তরুণ ব্যাটিং অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। এর মধ্যে মাত্র একটিতে হয়েছেন ম্যান অব দ্য ম্যাচ। আর এই সাফল্যেই বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে নিজের নাম লিখিয়েছেন। তা হওয়ারই কথা। কারণ ওই ম্যাচে মোসাদ্দেকের ম্যাচসেরা ইনিংসে ভর করেই প্রথম কোনো আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের ফাইনাল জিতেছিল বাংলাদেশে। সেদিন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৫ উইকেটে হারিয়ে প্রথম ফাইনাল জয়ের উল্লাসে মেতে উঠেছিল মাশরাফি বিন মুর্তজার দল।

বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে টাইগারদের ২৪ ওভারে ২১০ রান করার টার্গেট ছুড়ে দেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এ রান তাড়া করতে নেমে ১৪৩ রানে দলের সেরা ব্যাটসম্যানদের হারায় বাংলাদেশ। এ সময় ব্যাট হাতে মাঠে নেমে মোসাদ্দেক ৫ ছক্কা ও ২ বাউন্ডারিতে ২৭ বলে ৫২ রানের ইনিংস খেলে দলকে অবিস্মরণীয় জয় এনে দেন। বৃহস্পতিবার রাতে নোমান মোহাম্মদের ইউটিউব লাইভে সেই ম্যাচ নিয়ে কথা বলেছেন মোসাদ্দেক।

তিনি বলেন, আসলে বলে-কয়ে অমন ইনিংস খেলা যায় না। বলতে পারেন ভাগ্য সহায় ছিল ওইদিন। এর ব্যাখ্যায় মোসাদ্দেক বলেন, ‘নামার আগে ওইভাবে কিছু চিন্তা করিনি। তবে স্ট্রাইকরেট বাড়ানোর কথা মাথায় ছিল। তাই আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলেছিলাম। যেসব শট আমি কনফিডেন্স নিয়ে মারতে পারি সেগুলো খেলে স্ট্রাইকরেট বাড়ানোর চেষ্টা ছিল। ব্যাট-বলে হয়েও গেল। বলতে গেলে অমন একটা ফাইনালে যে আগে থেকে ভেবে-চিন্তে করে খেলা যায়, আমি তা ভাবি না। তাই বলছি আমি লাকি।’

মোসাদ্দেক আরও বলেন, ‘সেদিন আমার পার্টনার ছিলেন রিয়াদ ভাই। তিনি অনেক অভিজ্ঞ, পরিণত এবং বেশ কিছু ম্যাচ জেতানো ইনিংস আছে তার। আমার একটা বিশ্বাস ছিল যে, রিয়াদ ভাই আছেন এক প্রান্তে, আমি এ প্রান্তে চেষ্টা করি। মেরে খেলি, পারলে পারব, না হয় আউট হয়ে যাব। এই ভেবে আসলে হাত খুলে খেলা। আর সফল হয়ে গেছি।’ -যুগান্তর