কাবা নতুন গিলাফ ‘কিসওয়া’

পবিত্র কাবা শরিফে স্বর্ণখচিত নতুন গিলাফ ‘কিসওয়া’ পরানো হয়েছে। কিং আবদুল আজিজ কমপ্লেক্সের সার্বিক সহযোগিতায় পবিত্র দুই মসজিদের জেনারেল প্রেসিডেন্সি বিভাগ কাবার নতুন গিলাফ পরিবর্তন সম্পন্ন করে।  স্থানীয় সময় অনুযায়ী বুধবার দিবাগত রাতে গিলাফটি পরানো হয়। প্রতি বছর ৯ জিলহজ কাবা ঘরের গিলাফ পরিবর্তন করা হয়।

জানা যায়, রীতি অনুযায়ী বৃহস্পতিবার ফজরের নামাজের পর হজযাত্রীরা মিনা থেকে আরাফাতের ময়দানে পৌঁছার পর গিলাফ পরিবর্তনের কথা ছিল। কিন্তু সে রীতি ভেঙে বুধবার রাতেই নতুন গিলাফ লাগানো হয়। বৃহস্পতিবার সৌদি গণমাধ্যমগুলোতে এসব তথ্য প্রকাশ করা হয়।

সৌদি গেজেট জানায়, কিং আবদুল আজিজ কমপ্লেক্সের ডিরেক্টর এবং পবিত্র দুই মসজিদের জেনারেল প্রেসিডেন্সি বিভাগের উপ-প্রধান আহমেদ বিন মুহাম্মেদ আল মানসুরী এক বিবৃতিতে পবিত্র কাবায় নতুন গিলাফ পরানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বিবৃতির বরাত দিয়ে খবরে বলা হয়, গিলাফটি তৈরিতে ৬৭০ কিলোগ্রাম কালো বর্ণের কাঁচা রেশম, ১২০ কিলোগ্রাম স্বর্ণ এবং ১০০ কিলোগ্রাম রূপার সুতা ব্যবহার করা হয়েছে। এর মধ্যে রেশম ইতালি থেকে এবং স্বর্ণ আনা হয়েছে জার্মানি থেকে। স্বর্ণের সুতা দিয়ে গিলাফের বিভিন্ন অংশে কোরআনের আয়াত লেখা হয়েছে।

গিলাফ লেখা থাকে যা: পবিত্র কাবা শরিফের গিলাফ একটি বস্ত্রখণ্ড যা দ্বারা কাবাকে আচ্ছাদিত করে রাখা হয়। কাবার এ কালো গিলাফকে কিসওয়া বলা হয়। বর্তমানে গিলাফ কালো রেশমী কাপড় নির্মিত, যার ওপর স্বর্ণ দিয়ে লেখা থাকে ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসূলাল্লাহ’, ‘আল্লাহু জাল্লে জালালুহু’, ‘সুবহানাল্লাহু ওয়া বেহামদিহি, সুবহানাল্লাহিল আযিম’ এবং ‘ইয়া হান্নান, ইয়া মান্নান’।

গিলাফটি যাতে রোদ ও বৃষ্টিতে নষ্ট না হয় সেজন্য খুব টেকসই ও মানসম্মত উপায়ে তৈরি করা হয়েছে। আর এটি তৈরিতে সারা বছর ধরে কাজ করেছেন দুই শতাধিক শ্রমিক।