বিদ্যুৎ বিল বেশি এলে যা করবেন

কিশোরগঞ্জ জেলার পাকুন্দিয়ায় সাইকেল মেকানিক এমএ তুহিন কামাল। তার মেকানিকের দোকানে মাত্র একটি ফ্যান ও একটি লাইট ব্যবহার হয়। এই দু’টি যন্ত্রের জন্য গেল জুন মাসে বিদ্যুৎ বিল এসেছে ২৬ লাখ ৫৯ হাজার ১১৪ টাকা! শুধু তুহিন নয়, এমন ঘটনার মুখোমুখি অনেকেরই হতে হয়। এছাড়া করোনার মধ্যে ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিল নিয়ে হৈচৈ হয়েছে সারা দেশে। হাজার হাজার মানুষের অস্বাভাবিক বিদ্যুৎ বিল হয়েছে মে ও জুন মাসে।

বিষয়টি নিয়ে শেষ পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানির পক্ষ থেকে বিবৃতি দেয়া হয়েছিল। তারা ভুল বিল সংশোধন করার ঘোষণা দেয়। অবশ্য ভুতুড়ে বিলের কারণে বেশ কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরু’দ্ধে ব্যবস্থাও নেয়া হয়েছে। তবে বিদ্যুৎ বিল বেশি এলে কী করতে হবে তা অনেকেরই জানা নেই। বিদ্যুৎ বিল বেশি হলে চিন্তিত না হয়ে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করতে পারেন। আপনার হাতে আসা বিলটিতে যদি টাকার অংশ অস্বাভাবিক মনে হয় তাহলে প্রথমেই আপনাকে বিলে উল্লেখিত ইউনিটের দিকে খেয়াল করুন। অর্থাৎ আপনার আগের বিল থেকে বর্তমান বিল পর্যন্ত আপনি মোট কত ইউনিট ব্যবহার করেছেন বলে বিলে উল্লেখ আছে তা দেখুন।

এবার আপনার বিদ্যুৎ সংযোগের মিটারটি দেখুন। আপনার বিলে সবশেষ কত ইউনিট পর্যন্ত উল্লেখ রয়েছে আর মিটারে কত ইউনিট উঠেছে তা মিলিয়ে দেখুন। মিটারে প্রদর্শিত সর্বমোট ইউনিট সংখ্যার চেয়ে যদি আপনার বিলে উল্লেখিত মোট ইউনিট কম থাকে তাহলে বুঝতে হবে বিল ঠিক আছে। এক্ষেত্রে এক মাসে হঠাৎ বেশি বিল আসলেও সেটি আপনাকে দিতে হবে। ইতিপূর্বে মিটার না দেখে কম বিল করায় আপনার মিটারে অতিরিক্ত ইউনিট জমে ছিল এবং সবশেষ বিলে সেই ইউনিট সংযুক্ত হয়েছে।

আর যদি বিলে উল্লেখিত সর্বমোট ইউনিটের সংখ্যা মিটারে প্রদর্শিত ইউনিট সংখ্যার চেয়ে বেশি হয় তাহলে নিশ্চিত হওয়া যাবে এটি বিল প্রস্তুতকারীদের ভুল। এমন হলে বিলের কপিটি নিয়ে স্থানীয় বিদ্যুৎ অফিসে যোগাযোগ করতে হবে। বিদ্যুৎ বিলের জটিলতা এভাবে সংশোধনের জন্য কোনো ফি বা খরচ নেই। সরাসরি গিয়ে বিলের কপিটি সংশোধন করিয়ে নিন।

এক্ষেত্রে আপনি যদি বিলের কপি সংশোধন না করিয়ে অতিরিক্ত বিল জমা দেন তাহলে সেটি আপনার পরবর্তী বিল থেকে কর্তন হবে। অর্থাৎ আপনি যে পরিমাণ টাকা বেশি দিয়েছেন পরের মাসের বিলে সেই পরিমাণ কম আসবে।-সূত্র: সময় নিউজ।